Monday, 23 September, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




মুশফিক ইস্যুতে সমালোচকদের এক হাত নিলেন মাশরাফি

স্পোর্টস ডেস্ক: তিনি এখন নায়ক থেকে ‘খলনায়ক’ বনে গেছেন, কেউ কেউ তাকে কাঠগড়ায়ও দাঁড় করিয়ে ফেলেছেন। বলা হচ্ছে মুশফিকুর রহীমের ভুলেই নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে জিততে পারেনি বাংলাদেশ।

কিউরাই যখন চাপে, ঠিক তখন মুশফিক একটা বড়সড় ভুল করে দলের বড় ধরনের ক্ষতি করে ফেলেছেন। তার বাড়তি আবেগ ও ভুলে নিশ্চিত রান আউটের হাত থেকে বেঁচে যান নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। মিড অন থেকে তামিম ইকবালের থ্রো উইকেট সোজাই ছিল।

মুশফিক ক্রিকেটের ব্যাকরণ তথা ব্যাসিক মেনে উইকেটের পিছনে হাত রাখলে হয়ত বল এমনিতেই এসে উইকেটে গিয়ে আঘাত হানতো। তাহলে নির্ঘাত রান আউট হতেন কিউই ক্যাপ্টেন। কিন্তু মুশফিক তা না করে উল্টো হাত উইকেটের সামনে নিয়ে আসেন এবং তাতে করে তার কনুই বা হাতের একটা অংশ লেগে আগেই বেলস পড়ে যায়। যা টিভি রিপ্লেতে ধরা পড়ে এবং উইলিয়ামসন বেঁচে যান রান আউটের হাত থেকে।

ইনিংসের শুরুতেই জীবন পাওয়া নিউজিল্যান্ড ক্যাপ্টেন শেষপর্যন্ত ৪০ রান করেন। তাতে করে শুরুতে চাপে পড়া নিউজিল্যান্ড সংকট কাটিয়ে ওঠে। আর সেটাই বাংলাদেশের সম্ভাবনাকে কমিয়ে দেয়। প্রতিপক্ষকে আরও প্রবল চাপে ফেলার সুবর্ন সুযোগ হয় হাতছাড়া।

শেষ পর্যন্ত ২ উইকেটে হারের পর মুশফিকের ঐ ভুলটাই বড় হয়ে উঠেছে। দেশে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুশফিককে হেয় প্রতিপন্ন করা হচ্ছে। এমনও বলা হচ্ছে আবেগপ্রবণ মুশফিক নাকি ঐ ঘটনার পর মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন।

আসলে মুশফিকের ঐ ভুল দলের ভেতরে কেমন নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে, আর মুশফিক নিজে কেমন আছেন? কোনরকম অনুশোচনা কি তাকে পোড়াচ্ছে? এমন কৌতুহলি প্রশ্ন অনেকের মনেই ঘুরপাক খাচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন সব প্রশ্ন আরও শাখা-প্রশাখা এবং ডালপালা গজাচ্ছে।

আজ বাংলাদেশের অধিনায়ক প্রেস কনফারেন্সেও উঠলো এমন প্রশ্ন। এক সিনিয়র সাংবাদিক সরাসরি জানতে চাইলেন মাশরাফির কাছে, ‘আচ্ছা ক্যাপ্টেন, মুশফিক এখন কেমন আছেন? তিনি কি স্বাভাবিক আছেন? দলের ভিতরে কি মুশফিক ইস্যুতে কোনরকম নেতিবাচক পরিস্থিতির উদ্রেক ঘটেছে?

জবাব দিতে গিয়ে অনেক কথার ভিড়ে মুশফিকের পক্ষ নিয়ে উল্টো সমালোচকদের এক হাত নিয়ে ছেড়েছেন মাশরাফি। সমালোচনাকারীদের তীব্র সমলোচনা করে বাংলাদেশ ক্যাপ্টেন বলে ওঠেন, ‘ঐ রকম ভুল কোন অস্বাভাবিক বা বিরল ঘটনা নয়। খেলার মধ্যে এমন একটু আধটু ভুল হয়। কারো না কারো একটা ভুল হতেই পারে। সেটা স্বাভাবিক ঘটনা। অস্বাভাবিক নয়। যারা বিষয়টাকে স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেননি বা পারছেন না, তারাই মুশফিকের সমালোচনা করছেন।’

মাশরাফি বোঝানোর চেষ্টা করেন, সেটা সমালোচকদের সমস্যা, মুশফিকের নয়। দলের অভ্যন্তরীণ অবস্থার বর্ণনা দিতে গিয়ে মাশরাফি জানিয়ে দিলেন, ‘দলের ভিতরে কোনরকম নেতিবাচক পরিস্থিতির উদ্রেক ঘটেনি। মুশফিক একদম ঠিক আছে। তার স্বাভাবিক না থাকার কোন কারণ নেই। যারা কাজ করে, তাদের সমালোচনা হয়। খুবই স্বাভাবিক। বসে বসে সমালোচনা করা খুব সহজ। আমার কাছে মনে হয় টিম থেকে পুরো সাপোর্ট সবাই সবাইকে করছে। মুশফিকের ওপর একা দোষ চাপানো কেন?

তিনি আরও বলেন, ‘আর আমি নিজেই এখন পর্যন্ত আমার বেষ্টটা করতে পারেনি। আরও অনেকে নিজের সেরাটা মেলে ধরতে পারেনি। প্লেয়ারদের ক্ষেত্রে এটা হয়। সো ফার মুশফিক ভাল আছে। দলের ওপরও কোনরকম নেতিবাচক প্রভাব ফেলেনি। আসলে এটা একটা স্বাভাবিক ব্যাপার। যারা এটাকে স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেনি, তারাই এমন সমালোচনা করছেন।’

 





Developed by :