Wednesday, 17 August, 2022 খ্রীষ্টাব্দ | ২ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |




সিলেটে বন্যাদুর্গত মানুষের পাশে রংধনু গ্রুপ ও প্রতিদিনের বাংলাদেশ

বক্তব্য রাখছেন প্রতিদিনের বাংলাদেশ সম্পাদক প্রতিশ্রুতিশীল সাংবাদিক মুস্তাফিজ শফি

সিলেট: সিলেটে বন্যাদুর্গত এলাকার অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে প্রকাশিতব্য প্রতিদিনের বাংলাদেশ ও রংধনু গ্রুপ। রোববার উপজেলা প্রশাসন ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্ক এলাকায় বন্যাদুর্গত ৫০০ পরিবারের মধ্যে খাদ্য সহায়তা পরিচালিত হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, প্রতিদিনের বাংলাদেশ সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি, রংধনু গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রতিদিনের বাংলাদেশ-এর প্রকাশক কাউসার আহমেদ অপু, আরজি মিডিয়ার নির্বাহী পরিচালক মোরসালিন বাবলা, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুসিকান্ত হাজং, বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কে স্থাপিত সেনাবাহিনীর অস্থায়ী ক্যাম্প কমান্ডার মেজর দেওয়ান মো. মুক্তাদির, আল খায়ের ফাউন্ডেশনের কান্ট্রি ডিরেক্টর তারেক মাহমুদ সজীব প্রমুখ।

খাদ্য সহ্য়াতা কার্যক্রম পরিচালনা করেন প্রতিদিনের বাংলাদেশের ফিচার সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম আবেদ।

রংধনু গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রতিদিনের বাংলাদেশের প্রকাশক কাউসার আহমেদ অপু বলেন, ‘বন্যায় বাড়িঘরে আটকে পড়া মানুষকে সর্বপ্রথম উদ্ধার করেছে সেনাবাহিনী। এখন তারা বন্যাদুর্গত এলাকায় মানুষের জন্য কাজ করছে। তাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। তিনি বলেন, যে কোনো সংকটে আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াতে চাই। এ জন্য সিলেটে বন্যাদুর্গতদের সহযোগিতায় এখানে এসেছি।’

প্রতিদিনের বাংলাদেশ সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি বলেন, ‘সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আমরা সিলেটে বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে এসেছি। রংধনু গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ রফিকুল ইসলাম এই দুর্দিনে বন্যা উপদ্রুত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর কথা বলেছেন। তিনি আরও বলেন, আমাদের পত্রিকা এখনও প্রকাশ হয়নি। তারপরও সিলেটবাসীর দুঃসময়ে আমরা এসেছি। সবসময় এভাবেই আমরা সিলেটবাসীর পাশে থাকতে চাই।’

মেজর দেওয়ান মো. মুক্তাদির বলেন, ‘প্রতিদিন অগণিত মানুষ আসছেন। বন্যাকবলিত এলাকার মানুষের জন্য তারা যে ত্রাণ নিয়ে আসছেন, তা আমরা অসহায় মানুষের মধ্যে বিতরণের যথাসাধ্য চেষ্টা করছি। আজ রংধনু গ্রুপ ও প্রতিদিনের বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ ত্রাণ নিয়ে এসেছেন, তাদেরকে অসংখ্য ধন্যবাদ। এভাবে সবাই এগিয়ে এলে বন্যাকবলিত এলাকার মানুষ ভালোভাবে বাঁচতে পারবে।’

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লুসিকান্ত হাজং বলেন, সরকারের পাশাপাশি বেসরকারিভাবে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগের প্রথমদিকে আমাদেরও পরিস্থিতি সামাল দিতে হিশশিম খেতে হয়েছে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সর্বাত্মক সহযোগিতা করেছে। ফলে পুরো উপজেলার উপদ্রুত এলাকায় আমরা যেতে পরেছি।’

প্রসঙ্গত, রংধনু গ্রুপ ও প্রতিদিনের বাংলাদেশ-এর উদ্যোগে বিতরণ করা ত্রাণসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে ১০ কেজি চাল, এক কেজি করে চিড়া, মুড়ি ও গুড়, এক প্যাকেট বিস্কুট, গ্যাসলাইটার ও মোমবাতি।

 

Developed by :