Friday, 21 January, 2022 খ্রীষ্টাব্দ | ৮ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |




ব্রাজিলে অভিযান: বাংলাদেশিসহ মানবপাচার চক্রের ৮ জন গ্রেপ্তার

বার্তা ডেস্ক: ব্রাজিল ফেডারেল পু’লিশের সহায়তায় ২ ডিসেম্বর যু’ক্তরাষ্ট্রের ইমিগ্রেশন পু’লিশ ব্রাজিলের সাউ পাউলো এবং মিনাস জিরাইসে অ’ভিযান চালিয়ে কয়েকজন বাংলাদেশিসহ ৮ জনকে গ্রে’প্তার করেছে। ‘অ’পরেশন ব্লাড টাইজ’ শিরোনামে এই অ’ভিযানে এর আগেও বহুসংখ্যক বাংলাদেশিসহ মানবপাচার চক্রের সদস্যদের গ্রে’প্তার করা হয়েছে।

যু’ক্তরাষ্ট্র বিভাগের মুখপাত্র নিকোল নাভাস ৩ ডিসেম্বর বাংলাদেশ প্রতিদিনকে এ তথ্য জানিয়েছেন। বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে এই চক্রের সদস্যরা মোটা অর্থের বিনিময়ে প্রতিনিয়ত বিপুলসংখ্যক আদম বিভিন্ন দেশ হয়ে ব্রাজিলে জড়ো করছে। এসব লোকজনকে যু’ক্তরাষ্ট্রে ঢুকিয়ে দেয়ার চুক্তিতে ওরা অর্থ নেয় এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মা’রাত্মক হু’মকির মুখে ঠেলে দেয়া হয় যু’ক্তরাষ্ট্রে আসতে আগ্রহী ঐসব অসহায় লোকজনকে।

নিকোল নাভাস স্বাক্ষরিত বিচার বিভাগের এক প্রেস রিলিজে উল্লেখ করা হয়েছে, গত কয়েক বছরে মেক্সিকো সীমান্ত অ’তিক্রম করে যু’ক্তরাষ্ট্রে ঢুকে পড়ার সময় সীমান্ত রক্ষীদের হাতে গ্রে’প্তার হওয়া লোকজনের বিবরণে সংঘবদ্ধ এই মানবপাচারকারী চক্রের বি’রুদ্ধে অ’ভিযান পরিচালনার কথা ভাবে যু’ক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্ট এবং অ’ভিবাসন দফতরের পু’লিশ। এ লক্ষ্যে তারা ব্রাজিলের পু’লিশের আন্তরিক সহায়তায় উপরোক্ত সাউ পাউলো এবং মিনাজ জিরাইসে ত’দন্ত চালিয়ে মানবপাচার চক্রের অন্তত: ২১টি ঘাঁটিতে এই অ’ভিযান চালানো হয়। পাচারকারি চক্রের ৮ জনকে গ্রে’প্তারের সময় উ’দ্ধার করা হয় বেশ কিছু অ’ভিবাসীকে। তাদের প্রায় সকলেই বাংলাদেশি। লিবিয়ার অধিবাসীও রয়েছে কয়েকজন। অ’ভিযানে ব্রাজিলের কয়েকজনকেও গ্রে’প্তার করা হয়েছে। তারা এই চক্রের সহযোগী।

সংঘবদ্ধ এই চক্রের নেটওয়ার্ক গুড়িয়ে দেয়ার অনুভূতি ব্যক্তকালে মা’র্কিন হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্টের ব্রাজিলে কর্ম’রত এটাশে প্যাট্রিক চেন বলেন, আন্তর্জাতিক অ’প’রাধ চক্রের এমন তৎপরতা রুখে দিতে ব্রাজিল প্রশাসনের সহায়তার বিকল্প ছিল না। এজন্যে আম’রা কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি ব্রাজিলের কেন্দ্রীয় পু’লিশ বাহিনীর প্রতি। যু’ক্তরাষ্ট্রের অ’ভিবাসন ব্যবস্থাকে অবজ্ঞার দৃষ্টিতে দেখে দিনের পর দিন যারা মোটা অর্থের বিনিময়ে বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে শতশত মানুষ ব্রাজিলে জড়ো করে যু’ক্তরাষ্ট্রের পথে ঠেলে দিচ্ছে, এদের অনেকেই দুর্গম পথে মৃ’ত্যুর কোলেও ঢলে পড়ছে, এমন একটি নেটওয়ার্ক গুড়িয়ে দিতে আন্তর্জাতিক সহযোগিতার বিকল্প ছিল না।

আরিজোনার ফিনিক্সে কর্ম’রত হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ইন্টেলিজেন্স অফিসার স্কট ব্রাউন বলেন, ‘এভাবেই আম’রা যু’ক্তরাষ্ট্রের অ’ভিবাসন ব্যবস্থার সুরক্ষায় কাজ করছি। আন্তর্জাতিক পাচারকারি নেটওয়ার্কের এহেন জঘন্য অ’পতৎপরতায় সীমান্তে নিরাপত্তা ব্যাহত হচ্ছে। জননিরাপত্তার সাথে জাতীয় নিরাপত্তাও হু’মকির মুখে পড়েছে। কিন্তু আন্তর্জাতিক পু’লিশের সহায়তায় যু’ক্তরাষ্ট্রের পু’লিশের এই অ’ভিযান যথাযথভাবে পরিচালিত হওয়ায় নিশ্চয়ই সংঘবদ্ধ ঐ চক্র আর এমন অ’পতৎপরতায় সাহস দেখাবে না।’

যু’ক্তরাষ্ট্র বিচার বিভাগে ক্রিমিনাল ডিভিশনের মানবপাচার বিরোধী সহকারি এটর্নি জেনারেল কেনেথ এ পোলাইট জুনিয়র এ প্রসঙ্গে বলেন, আন্তর্জাতিক পার্টনারদের আন্তরিক সহায়তার মধ্যদিয়েই আম’রা মানবপাচার নেটওয়ার্ক বিরোধী অ’ভিযানে সক্ষম হচ্ছি। এই অ’ভিযানে ব্রাজিলের ফেডারেল পু’লিশের ভূমিকা অবশ্যই প্রশংসনীয়।

উল্লেখ্য, হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ইন্টেলিজেন্স এজেন্সিতে ৭১০০ জন অফিসার রয়েছেন যারা যু’ক্তরাষ্ট্রের ২২০ সিটিতে কাজ করছে। একইসাথে ৫৪ দেশের ৮৬ সিটিতেও রয়েছে এই দফতরের লোকজন।

 




 

Developed by :