Monday, 14 June, 2021 খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |




বাহরাইনে করোনায় এক মাসে মারা গেছেন ৩২ বাংলাদেশি

বার্তা ডেস্ক: করো’নাভাই’রাস রূপ বদলে বিশ্বজুড়ে একের পর এক তা’ণ্ডব চালিয়ে যাচ্ছে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশ বাহরাইনেও এর ব্যতিক্রম নয়। দেশটিতে মহামা’রিতে নতুন আ’ক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে দৈনিক মৃ’ত্যুও।

মোট ১৮ লাখ জনসংখ্যার ছোট্ট এই দ্বীপরাষ্ট্রে শুরু থেকে এ পর্যন্ত করো’নায় আ’ক্রান্তের সংখ্যা দুই লাখ ৫১ হাজার ৭৮ জন। মা’রা গেছেন এক হাজার ১১৯ জন। এর মধ্যে বাংলাদেশির সংখ্যা ৭৮ জন। শুধু মে মাসেই করো’নায় আ’ক্রান্ত হয়ে মা’রা যান ৩২ বাংলাদেশি।

উল্লেখ্য, দেশটিতে প্রায় দুই লাখ বাংলাদেশি বসবাস করেন।

বাহরাইনের বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের জানুয়ারি থেকে রোববার (৬ জুন) পর্যন্ত বাহরাইনে ২২৭ বাংলাদেশির মৃ’ত্যু হয়েছে। এর মধ্যে স্বাভাবিক মৃ’ত্যু হয়েছে ১০৯ জনের। করো’না আ’ক্রান্ত হয়ে মা’রা গেছেন ৭৮ জন, সড়ক দুর্ঘ’টনায় ২১ জন, কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘ’টনায় আটজন এবং আত্মহ’ত্যা করেছেন সাতজন। স্বাভাবিক মৃ’ত্যুর মধ্যে বেশিরভাগ মৃ’ত্যু হয়েছে হৃদরোগে আ’ক্রান্ত হয়ে এবং ব্রেনস্ট্রোকজনিত কারণে।

প্রবাসীদের হৃদরোগে আ’ক্রান্তের ব্যাপারে বাংলাদেশ সাংবাদিক ফোরাম বাহরাইনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের মজুম’দার বলেন, প্রবাসে যারা অবস্থান করেন তারা সাধারণত দেশে আর্থিক ঋণ ও পারিবারিক চাপের মধ্যে থাকেন। প্রবাসে সবাই কাজের পরে যাতে হাসিখুশি থাকতে পারেন এবং প্রবাসীদের সবসময় মানসিক চাপ না দিয়ে উৎসাহিত করার জন্য তিনি দেশে থাকা পরিবারের প্রতি আহ্বান জানান।

বাহরাইনে বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম সচিব (লেবার কাউন্সিলর) শেখ মোহাম্ম’দ তৌহিদুল ইস’লাম জানান, করো’নায় আ’ক্রান্ত হয়ে কেউ মা’রা গেলে বাহরাইন সরকারের নিয়ম অনুযায়ী দেশে থাকা স্বজনদের অনুমতি নিয়ে যত দ্রুত সম্ভব লা’শ এখানেই দাফন করা হয়।

এছাড়া দুর্ঘ’টনা বা স্বাভাবিক মৃ’তদের লা’শ যত দ্রুত সম্ভব দেশে পাঠিয়ে দেয়া হয়। অবশ্য যারা বৈধভাবে এখানে কাজ করছেন তাদের লা’শ নিজ নিজ মালিকের সহযোগিতায় এবং যারা অ’বৈধ ও যাদের মালিক খরচ দিতে অক্ষম তাদের লা’শ দূতাবাসের মাধ্যমে কমিউনিটির বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠনের আর্থিক সহায়তায় পাঠানো হয়।

তিনি আরও বলেন, বাহরাইনে বর্তমানে ৪৫ হাজারেরও বেশি ফ্লেক্সি ভিসার বাংলাদেশি কর্মী রয়েছেন। তাদের জন্য দূতাবাস ইন্স্যুরেন্সের পরিকল্পনা করছে বলে তিনি জানান।

 

Developed by :