Sunday, 16 May, 2021 খ্রীষ্টাব্দ | ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |




বঙ্গবন্ধু দেখছেন, বঙ্গবন্ধু শুনছেন।। লুৎফর রহমান রিটন।।

বঙ্গবন্ধু দেখছেন, বঙ্গবন্ধু শুনছেন

লুৎফর রহমান রিটন

তোমার পরনে মুজিবপোশাক, তুমি খুবই পরিপাটি
তুমি দাবি করো তোমার অঙ্গে লেগে আছে পলিমাটি।
তুমি দাবি করো মুজিবর আছে, মরে নাই মুজিবর
মুজিবর আছে উর্বর তাই বাংলার প্রান্তর।
তুমি দাবি করো তুমি মুজিবের নির্দেশ মেনে চলা
তাঁরই ছায়াপথে হেঁটে যাওয়া তুমি তাঁরই অগ্নিতে জ্বলা।
তাঁরই স্বপ্নের বাস্তবায়নে রেখেছো জীবন বাজি
ঝঞ্ঝায় ঝড়ে মুজিবের তরে তুমি মরিতেও রাজি।

তুমি যা বলছো বানিয়ে বানিয়ে, বানোয়াট কথামালা
তোমার মিথ্যা বয়ানে আমার কান-প্রাণ ঝালাপালা!
তুমি তো মোটেই ধারণ করো না মুজিবের চেতনাকে
মুজিব কেবল তোমার ভাষণে তোমার ওষ্ঠে থাকে!

এই যে তুমি মিথ্যে বলছো, বঙ্গবন্ধু শুনছেন!
তুমি বানোয়াট ভাষণ দিচ্ছো বঙ্গবন্ধু দেখছেন!

সাধারণ লোকে আহা কী মুগ্ধ তোমার মুজিব ক্রেজে
আসল তোমাকে দেখে না যে কেউ তুমি থাকো ক্যামোফ্লেজে।
মুজিবের নাম বেচে বেচে তুমি হয়েছো বিপুল ধনী
আগে ছিলে তুমি অযোগ্য আর সাধারণ এক গণি।
এখন তুমি যে বিরাট বিশাল শিল্পপতির বেশে
ব্যাংকঋণ নাও শত শত কোটি শোধ করো না তা শেষে।
মন্ত্রী-এম্পি হওয়ার জন্যে দলে ঢোকো সোজাসুজি
তোমার লক্ষ্য মুনাফা কেবল মুজিবর শুধু পুঁজি!

মুজিবের নাম বিক্রি করছো বঙ্গবন্ধু শুনছেন!
তোমার ঘৃণ্য লুটের দৃশ্য বঙ্গবন্ধু দেখছেন!

ব্রিজ-কালভার্ট-সড়ক-স্থাপনা তোমার হাতেই হয়
কিন্তু সেগুলো নড়বড়ে খুবই! মোটে টেকসই নয়!
ভেজাল মিশিয়ে নির্মাণ করো চুরি করো প্রতি ধাপে
হুড়মুড় করে সব ভেঙে পড়ে অপকর্মের চাপে!
লোভ চকচকে তোমার দু’চোখ তুমি চেনো শুধু টাকা
কাজ না করেই পুরোটা বাজেট তুমি করে দাও ফাঁকা!

এই যে তুমি যে চুরিও করছো বঙ্গবন্ধু দেখছেন!
একটুও তুমি লজ্জা পাও না, বঙ্গবন্ধু পাচ্ছেন!

কাজ না করেই মাইনে নিচ্ছো নিয়মিত প্রতি মাসে
চোরেদের এক মহা সমাবেশ তোমাদের চারিপাশে!
ঘুষ খেতে খেতে ঘাড়-গর্দান চর্বি প্রলেপে মোটা
চর্বি জমেছে ভূঁড়িতেও তাই সদা ফুলে থাকে ওটা।
দেশ-জনগণ ধোঁকা খায় রোজ প্রতারিত প্রতি পলে
কান পাতা দায় চোর-লুটেরার ঐক্যের কোলাহলে…

তুমি ঘুষখোর মহা বাটপার বঙ্গবন্ধু জানছেন!
তোমার বিষদ কীর্তিসমূহ বঙ্গবন্ধু পড়ছেন!

তিরিশ লক্ষ শহিদের ঋণ বিস্মৃত হও নিতি
বক্ষে তোমার ঘৃণা-হত্যার সাম্প্রদায়িক নীতি!
পরাজিত হও প্রতিদিন তুমি টাকা-ক্ষমতার মোহে
তোমার পূর্বপুরুষেরা ছিলো প্রেমে-প্রতিরোধে-দ্রোহে…
আর তুমি থাকো চুরির ফিকিরে! দেশপ্রেম কিছু আছে??

লুটপাট ছাড়া মানবিকতার নেই তুমি ধারে কাছে!
সিন্ডিকেটের মারপ্যাঁচ কষে নৈতিকতাকে ঝেড়ে
বেশি দামে বেঁচো সকল পণ্য আর বেঁচো মুজিবেরে!
তোমার দু’চোখে মুজিবও পণ্য! ঘৃণ্য পিশাচ তুমি–
কেউ নিরাপদ নয়, স্বাধীনতা জননী জন্মভূমি!

তোমার এমন পরিণতি দেখে বঙ্গবন্ধু কাঁদছেন…
দেশের এমন দুর্ভোগ দেখে জাতির জনক কাঁদছেন……

অটোয়া ২১ মার্চ ২০২১

[বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি/ মাসুক হেলাল]

 

Developed by :