Monday, 1 March, 2021 খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




খাদিমে নাঈম হত্যা : আরও দুজন আটক

সিলেট: শহরতলীর খাদিম বিআইডিসি এলাকায় ছুরিকাঘাতে নাঈম আহমদ হত্যাকাণ্ডে আরও দুজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হচ্ছেন- সিলেট নগরীর শিবগঞ্জ সেনপাড়া এলাকার ৪৬ নং বাসার বাসিন্দা হেবল ফুলিয়ার ছেলে প্রিন্স হিমেল ও একই এলাকার পুষ্পায়ন ১৩/১-এর বাসিন্দা হেলাল উদ্দিনের ছেলে মোহাম্মদ অলি আহমদ।

এদের আটকের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার বি এম আশরাফ উল্যাহ তাহের। এ দুজনকে শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) সন্ধ্যারাতে আটক করা হয়।

এদিকে, চাঞ্চল্যকর নাঈম হত্যাকাণ্ডের রহস্য আজ শনিবারের (২৩ জানুয়ারি) মধ্যেই উদঘাটন হবে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে।

গত ১৯ জানুয়ারি (মঙ্গলবার) সন্ধ্যা ৭টার দিকে স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে খাদিম বিআইডিসি এলাকার কৃষি গবেষণা খামারের শেষ প্রান্তে লেকের পাশ থেকে নাইমের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে এসএমপি’র শাহপরাণ থানাপুলিশ। এসময় নাইমের শরীরের বিভিন্ন স্থানে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়।

নাঈম আহমদ শাহপরাণ থানাধীন পাঁচঘড়ি এলাকার নিজাম উদ্দিনের ছেলে। সে স্থানীয় মোহাম্মদপুর এলাকায় নানার বাড়িতে থেকে গ্রিল মিস্ত্রির কাজ করতো।

ঘটনার পরদিন বুধবার (২০ জানুয়ারি) রাতে শাহপরাণ থানায় নাঈমের মা জাহানারা বেগম বাদি হয়ে নাঈমের বন্ধু সবুজ, রাব্বি, জুনেদসহ আরও অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। তবে মামলা দায়েরের আগেই বুধবার বিকেলে নাঈমের বন্ধু দেলোয়ার হোসেন সবুজকে শাহপরাণ এলাকা থেকে আটক করে পুলিশ। পরদিন বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সুবজকে হাজির করে পুলিশ ১০ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আটক দেলোয়ার হোসেন সবুজ (২২) সিলেটের গোয়াইনাঘাট উপজেলার ফতেহপুরের বড়নগর গুলনি চা বাগানের লাল মিয়ার ছেলে। তিনি বর্তমানে শাহপরাণ এলাকার চামেলীবাগে বসবাস করেন।

 

Developed by :