Wednesday, 24 February, 2021 খ্রীষ্টাব্দ | ১২ ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




গৃহকর্মীর নিষ্ঠুরতা: ভয়ঙ্কর রেখা পালিয়ে বেড়াচ্ছে

বার্তা ডেস্ক: রাজধানীর মালিবাগে ফাঁকা বাসায় গৃহকর্মীর হাতে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছেন ৭৫ বয়স্ক বৃদ্ধা বিলকিস বেগম। পরে নগদ টাকা, স্বর্ণসহ পালিয়ে যায় ভয়ঙ্কর গৃহকর্মী রেখা। সোমবার সকালের এ বর্বরতা সিসি ক্যামেরার ফুটেজে উঠে আসে। পুলিশ বলছে, অভিযুক্ত গৃহকর্মী রেখা পালিয়ে বেড়াচ্ছে। সে বারবার নিজের অবস্থান পাল্টাচ্ছে। ঘটনার পর মালিবাগ থেকে যায় ডেমরায়। তার গ্রামের বাড়ি ঠাকুরগাঁওয়ের দিকে, সেখানেও নজরদারি চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ভয়ঙ্কর ওই নির্যাতনের দৃৃশ্যের সিসিটিভি ফুটেজ ভাইরাল হয়েছে সামাজিক মাধ্যমে। এতে দেখা যায়, সোমবার সকাল সোয়া দশটা। প্রায় তিন বছর ধরে কিডনীসহ নানা সমস্যায় ভোগা বিলকিস বেগম শুয়ে আছেন বিছানায়। পরম যত্নে তার সেবা করছেন রেখা নামের গৃহকর্মী। একটু পরেই জোর করে বিলকিস বেগমকে বাথরুমে ঢোকায় রেখা। এরই মাঝে খুলে ফেলে তার শরীরের সব কাপড়। শীতের সকালে বৃদ্ধার গায়ে ইচ্ছেমতো ঢালা হয় ঠান্ডা পানি। কিন্তু ভেতরে গৃহকত্রীকে আটকাতে না পেরে বেরিয়ে আসে রেখার আসল চেহারা।

সিসিক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, ওই বৃদ্ধাকে উলঙ্গ করে লাঠি দিয়ে ক্রমাগত আঘাত করছে গৃহকর্মী রেখা। বৃদ্ধা আর্তনাদ করছেন ও এক পর্যায়ে তার মাথা দিয়ে রক্তপাত শুরু হয়। মার খেয়ে ফ্লোরে পড়ে গেলেও ক্ষান্ত হননি একের পর এক আঘাত করা হয় মাথায়। একপর্যায়ে হাতের কাছে যা পেয়েছে তা দিয়েই চালিয়েছে নির্যাতন। আলমারির চাবির জন্য বুকে উপর চেপে বসে। বটি হাতেও তেড়ে আসেন গৃহকর্মী রেখা।

এক পর্যায়ে অসহায়ের মতো আত্মসমর্পণ করেন বিলকিস বেগম। তার গলা থেকে রেখা চেইন খুলে পরে নেয় ও আয়েশি ভঙ্গিতে পরখ করে নেন হাতের বালা। তারপর চাবির সন্ধান পায় নিষ্ঠুর এই গৃহকর্মী। কিন্তু খুলতে না পেরে রক্তাক্ত, অসুস্থ বৃদ্ধাকে টেনে নিয়ে বাধ্য করেন আলমারি খুলে দিতে। ড্রয়ার খুলে স্বর্ণ, নগদ টাকা, মোবাইল সবই হস্তগত করে রেখা। পুরোটা সময় বিবস্ত্র ছিলেন বৃদ্ধা, নিজের হাতেই রক্ত থামাতে মাথায় বাঁধেন কাপড়। সব হাতানোর পর কক্ষে তালা দেয়। তারপর খুলে আনে টিভি। জোগাড় করে ব্যাগ। সবকিছু গুছিয়ে ফাকা বাসায় আহত বৃদ্ধাকে ফেলে পালিয়ে যায় ভয়ংকর গৃহকর্মী রেখা।

জানা গেছে, মালিবাগে পিডিবির সাবেক প্রকৌশলী হাজী আব্দুল লতিফ ১৯৮৬ সালে তৈরি করেন বাড়ি। ৯০ সালে পুরো পরিবার নিয়ে খিলগাঁও থেকে চলে আসেন মালিবাগে। তিনি মারা যাবার আগেই বাড়ির ফাঁকা জায়গায় ছোট ছোট ঘর করে ভাড়া দিয়েছিলেন। সেখানেই একটি ঘরে গত বছর শুরুতে স্বামীসহ ভাড়া ওঠে রেখা। এরপর প্রায় ১ বছর বিলকিস বেগমের মেঝ মেয়ে মেহবুবা জাহান বুলবুলির বাসায় কাজ করে রেখা। গেল ৭ জানুয়ারি ছেড়ে দেয় কাজ, চলে যায় অন্যখানে। গত ১৬ জানুয়ারি সার্বক্ষণিক থাকার কথা বলে ফিরে আসেন এ বাসায়। এর দুদিন পর বাসায় কেউ না থাকার সুযোগে গৃহকত্রী বিলকিস বেগমকে নির্মম নির্যাতন করে নগদ টাকা, স্বর্ণসহ টিভি ও মোবাইল নিয়ে পালিয়ে যায় সে।

আহত বৃদ্ধার বয়স ৭৫, বৃদ্ধার মেয়ে মেহবুবা বলেন, এক বছর আগে মাসিক ছয় হাজার টাকা বেতনে মেয়েটিকে বাসায় কাজে রাখা হয়েছিল। তার দায়িত্ব ছিল আমার বৃদ্ধা মাকে সেবাযত্ন করা। ঘটনার সময় ওই বাসায় তার মা একাই ছিলেন। নির্যাতিতার মেয়ে বলেন, তার মা বিলকিস বেগম এখনো চিকিত্সাধীন রাজধানীর একটি হাসপাতালে। মাথায় অস্ত্রোপচারের পর কেবিনে আনা হয়েছে তাকে। শঙ্কামুক্ত না হলেও আগের চেয়ে এখন অনেকটাই উন্নতি হয়েছে তার অবস্থা।

এ প্রসঙ্গে শাহজাহানপুর থানার ওসি শহীদুল হক গতকাল বিকেলে জানান, মঙ্গলবার অভিযোগ পাওয়ার পর থেকেই আমরা তদন্ত শুরু করেছি। অভিযুক্ত গৃহকর্মী রেখাকে খুব তাড়াতাড়ি গ্রেফতার করতে পারবো বলে আশা করছি। আইনশৃংখলা রক্ষাবাহিনী একটি সূত্র বলছে, ঘটনার পর কিছুক্ষণ মালিবাগেই ছিল রেখা, পরে ডেমরায় যায়। তারপর উত্তরাঞ্চলের ঠাকুরগায়ে নিজ গ্রামের দিকে রওনা দিয়েছে সে। রেখার বাবা আফা হোসেন ঋণের দায়ে ৪/৫ বছর আগে পরিবারসহ ঢাকায় পাড়ি জমায়।

 




সর্বশেষ সংবাদ

Developed by :