Monday, 25 January, 2021 খ্রীষ্টাব্দ | ১২ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ নিলেন শাহিন খালিক

বার্তা ডেস্ক: প্যাটারসনের দ্বিতীয় ওয়ার্ডের কাউন্সিলম্যান হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছেন জনাব শাহিন খালিক। মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) শহরের ইউনিয়ন এভিনিউস্থ (২৩৬ নাম্বার বাসায়) তার নির্বাচনী অফিসের সামনে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় তিনি শপথ পাঠ করেন। প্যাটারসন সিটির প্রধান বিচারক মাননীয় জন আব্দেল হাদী তার এ শপথ পাঠ করান।

প্রথম ওয়ার্ড কাউন্সিলম্যান মাইকেল জ্যাকসনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে তৃতীয় ওয়ার্ডের বিজয়ী কাউন্সিলম্যান আলেক্স মেন্ডেজসহ সিটি পরিষদের সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, বিপুল সংখ্যক শুভাকাঙ্ক্ষী প্যাটারসনবাসী এবং শাহিন খালিকের পরিবারের সবাই এসময় উপস্থিত ছিলেন।

আকাশে বাঁকা চাঁদের মৃদু আলোর মাঝে আতসবাজির লাল-নীল রঙ্গিন ঝলকানিতে প্যাটারসনবাসীর নির্বাচিত পছন্দের মানুষটি শপথ পাঠ শেষে এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলম্যান মাইক জ্যাকসন, আলেক্স মেন্ডেজ, অন্তর্বর্তীকালীন কাউন্সিলম্যান গিলম্যান চৌধুরী এবং শাহিন খালিকের নির্বাচনী কেম্পেইন ম্যানেজার মনসুর আহমেদ।

মাইকেল জ্যাকসন বলেন, “মনে হচ্ছিল যেন আমি ঢোল বাজাচ্ছি, আর কেউ তা শুনছে না। আমি একা শুধু বাজিয়েই যাচ্ছি।” কিন্তু এবার দ্বিতীয় ওয়ার্ড তা শুনতে পেয়েছে।

আলেক্স মেন্ডেজ বলেন, শাহিন খালিক কারো হাতের রাবার স্ট্যাম্প অর্থাৎ আজ্ঞাবহ হবেন না। শাহিন খালিক প্যাটারসনের মানুষের নিবেদিত এবং তার পরিবারের জন্য।

অন্তর্বর্তীকালীন কাউন্সিলম্যান গিলম্যান চৌধুরী তার সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় বলেন, “আসুন আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ ভাবে মানুষের জন্য কাজ করি।”

আবেগময় কণ্ঠে শাহিন খালিক শপথ শেষে সংক্ষিপ্ত ভাষণে তার পরিবার, বন্ধু-বান্ধব এবং সর্বোপরি ভোটারদেরকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, একমাত্র ভোটাররাই নির্বাচন করেন কে ক্ষমতায় যাবে আর কে বিতাড়িত হবে। তিনি বলেন সব রকমের দুরভিসন্ধি অতিক্রম করে তারা তাই প্রমাণ করেছেন।

শুধু কথার ফুলঝুরি দিয়ে নয় কাজের উপর সবসময় আস্থাবান শাহিন খালিক তিনটি শব্দের উপর জোর দেন, “সহযোগিতা, শিষ্টাচার এবং কর্মদক্ষতা”।

শাহিন খালিকের কেম্পেইন ম্যানেজার জনাব মনসুর আহমেদ বলেন, প্যাটারসনবাসী গত সাত মাসে শাহিন খালিককে দুইবার নির্বাচিত করেছেন। এজন্য তিনি প্যাটারসনবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, “যেকোনো বিষয়ে দ্বিমত থাকলে আসুন আমরা বসে সমাধান করি। আলোচনার মাধ্যমে অনেক বড় সমস্যা সমাধান করা যায়”।

পরে সংক্ষিপ্ত সংক্ষিপ্ত মোনাজাতে প্যাটারসনবাসীর সার্বিক কল্যাণ কামনা এবং করোনাভাইরাস মহামারি থেকে মানুষের মুক্তির জন্য আল্লাহর দরবারে আবেদন জানানো হয়।

 

Developed by :