Monday, 21 September, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




সিলেটে ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম শুরু : প্রথম আবেদনকারী এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান

সিলেট: সিলেটে বহুল প্রতীক্ষিত ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট বা ই-পাসপোর্ট পরিষেবা ও স্বয়ংক্রিয় নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।

সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে সিলেট বিভাগীয় পাসপোর্ট অফিসে এ কার্যক্রম শুরু করা হয়।

প্রথমেই ই-পাসপোর্ট আবেদন করে কার্যক্রম শুরু করেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান।

সিলেট বিভাগীয় পাসপোর্ট অফিসের পরিচালক জনাব নুরুল হুদা নিজে ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম সম্পন্ন করে দেন এবং ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম সম্পকিত একটি স্মরণিকা হস্তান্তর করেন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক ময়নুল হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের নেতা শমসের জামাল, গ্রীন ভিউ, পরিবেশ ও সামাজিক উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি মোঃ তৌফিকুল আলম বাবলু,২৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিন ইরান,সাধারণ সম্পাদক ছয়েফ খান, সাংবাদিক সিরাজুল ইসলামসহ অত্র অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারী বৃন্দ।

এর আগে গত ২২ জানুয়ারি জধানীর শেরবাংলা নগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ই-পাসপোর্টের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তথ্যানুযায়ী, ‘বাংলাদেশে ই-পাসপোর্ট এবং স্বয়ংক্রিয় নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার’ প্রকল্পটি ৪ হাজার ৫৬৯ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

ডিআইপি পুরো প্রকল্পটি সরকারি অর্থায়নে বাস্তবায়ন করছে। ১০ বছরে মোট ৩০ মিলিয়ন পাসপোর্ট বিতরণ করা হবে। ই-পাসপোর্ট সেবার সঙ্গে সঙ্গে অনলাইনের মাধ্যমে অভিবাসনের আনুষ্ঠানিকতারও পুরো প্রক্রিয়া শেষ হবে। জার্মানিতে দুই মিলিয়ন ই-পাসপোর্ট তৈরি করা হবে। যাঁরা প্রথমে আবেদন করবেন, তাঁদের পাসপোর্ট জার্মানি থেকে তৈরি করা হবে। ই-পাসপোর্টের মেয়াদ হবে ৫ ও১০ বছরের জন্য।

২০১৮ সালের ১৯ জুলাই ডিআইপি এবং জার্মানি ভেরিডোস জিএমবিএইচ সংস্থা ইলেকট্রনিক পাসপোর্টের জন্য একটি চুক্তি স্বাক্ষর করে।

 

Developed by :