Monday, 25 May, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




বিয়ানীবাজারে করোনায় মৃত ব্যক্তির দাফনে ১০ স্বেচ্ছাসেবী প্রস্তুত

বিয়ানীবাজার: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বা করোনা সন্দেহে কোনো ব্যক্তি মারা গেলে তার দাফন ও সৎকার কাজে আগ্রহী হয়েছেন বিয়ানীবাজার উপজেলার ১০জন স্বেচ্ছাসেবী। এসব স্বেচ্ছাসেবীরা জানান, সৃষ্টিকর্তার সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য এ মহতী কাজ করতে আগ্রহী হয়েছেন তারা।

ওই ১০ স্বেচ্ছাসেবীরা হচ্ছেন– মাথিউরা ইউনিয়নের নালবহর গ্রামের হানিফ মোহাম্মদ ইফতেখার, চারখাই ইউনিয়নের বাঘবাড়ি গ্রামের রুহিন চৌধুরী ফরহাদ, চারখাই ইউনিয়নের পল্লীশাসন মোহনপুর গ্রামের লিপি বিশ্বাস, দুবাগ ইউনিয়নের চরিয়া গ্রামের আবুল কাশেম চৌধুরী, বিয়ানীবাজার পৌরসভার শ্রীধরা গ্রামের রেহান আহমেদ, বিয়ানীবাজার পৌরসভার নয়াগ্রামের আব্দুল্লাহ, আলীনগর ইউনিয়নের আলীনগর গ্রামের শামীম আহমদ, দুবাগ ইউনিয়নের দুবাগ গ্রামের বিজয় চক্রবর্তী, লাউতা ইউনিয়নের নন্দীরফল গ্রামের তাবাসুসুম আরা ও মুড়িয়া ইউনিয়নের উত্তর চন্দগ্রামের নছিমা বেগম।

জানা গেছে, গত সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমী মাহবুব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কোনো ব্যক্তি মারা গেলে তার দাফন ও সৎকারের ১০জন স্বেচ্ছাসেবী দরকার শিরোনামে একটি স্ট্যাটাস দেন। ওই স্ট্যাটাসে তিনি উল্লেখ করেন, ৭জন পুরুষ ও ৩জন মহিলা মিলে মোট ১০জন স্বেচ্ছাসেবক দরকার। করোনাভাইরাসে মৃত মানুষের লাশ দাফন/সৎকার তাদের প্রশিক্ষণ ও সৎকারের প্রয়োজনীয় সামগ্রী দেয়া হবে। আগ্রহীদের সহকারী কমিশনার (ভূমি) খুশনূর রুবাইয়াত মৌমিতার মুঠোফোন নম্বরে কল দিয়ে রেসজিস্ট্রেশনের আহ্বান জানানো হয়।

সোমবার বিকালের মধ্যেই উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ২৭জন পুরুষ ও মহিলা স্বেচ্ছাসেবী যোগাযোগ করেন প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সাথে। পরে প্রশাসনের দায়িত্বশীলরা সেই আহ্বানে সাড়া দেয়া স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্য থেকে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ১০জন স্বেচ্ছাসেবীকে প্রশিক্ষণের জন্য নির্বাচিত করেন।

এদিকে, আজ বুধবার থেকে করোনায় মৃত ব্যক্তির দাফন ও সৎকারের জন্য নির্বাচিত ১০ স্বেচ্ছাসেবীর প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

 

Developed by :