Monday, 1 June, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




বিয়ানীবাজারের সন্তান মুক্তিযোদ্ধা মালেক এর মৃত্যু : এমপি নাহিদসহ বিশিষ্টজনের শোক

সিলেট: সিলেট জেলা ও দায়রা জজ আদালতের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের সাবেক বিশেষ পিপি, বিয়ানীবাজারের বাহাদুরিবাড়ির কৃতিসন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট মো. আব্দুল মালেক আর নেই।

রোববার (২৯ মার্চ) সন্ধ্যা সোয়া সাতটার দিকে তিনি সিলেট নগরের বেসরকারি একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নাল্লিলাহি….রাজিউন)।

মো. আব্দুল মালেক অ্যাডভোকেট সিলেটে কমরেড মালেক নামে পরিচিত ছিলেন। এছাড়াও তিনি সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ।

তিনি দীর্ঘদিন ধরে কিডনি ও ডায়াবেটিস রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। তিনি মৃত্যুকালে তিন কন্যা রেখে গেছেন।

কমরেড মালেক সিলেট নগরের যতরপুরস্থ মৌবন-৩৭ নম্বর বাসার বাসিন্দা মরহুম তাজিদ আলীর দ্বিতীয় সন্তান এবং আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট মইনুল ইসলাম ও জিয়াউল ইসলামের ভাই।

সোমবার (৩০ মার্চ) বাদ জোহর দরগাহে হজরত শাহজালাল (র.) মসজিদে জানাজার নামাজ শেষে তাকে দরগাহ কবরস্থানে দাফন করা হবে।

এদিকে, মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি কমরেড মালেক এর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক শিক্ষামন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি।

শোকবার্তায় তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধা মালেক এর মৃত্যু খবর শুনে মর্মাহত হয়েছি। তিনি একজন সৎ ও সত্যিকারের ভালো মানুষ ছিলেন। আজীবন তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে গেছেন অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে।

এমপি নাহিদ কমরেড মালেক এর বেহেস্ত নসিব কামনা করেন।

এছাড়াও শোক প্রকাশ করেছেন লাউতা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা এমএ জলিল, বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে’র সভাপতি মামুন রশীদ, সাধারণ সম্পাদক কামরুল হোসেন মুন্না, জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইউকে’র সাংগঠনিক সম্পাদক জুবের আহমদ, সাপ্তাহিক বিয়ানীবাজার বার্তা পত্রিকার সম্পাদক ছাদেক আহমদ আজাদ, বিয়ানীবাজার রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক শাহীন আলম হৃদয় প্রমুখ।

 

Developed by :