Friday, 3 April, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ২০ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




বড়লেখায় কোয়ারেন্টাইন না মানায় প্রবাসীর পাসপোর্ট জব্দ, জরিমানা

বড়লেখা: বড়লেখায় হোম কোয়ারেন্টিন না মানায় এক প্রবাসীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি মো. খাইরুল ইসলাম নামের ওই প্রবাসীর পাসপোর্টও জব্দ করা হয়েছে। তিনি পৌরসভার বারইগ্রামের মোস্তফা উদ্দিনের ছেলে।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী হাকিম মো. শামীম আল ইমরান ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা এবং পাসপোর্ট জব্দের আদেশ দেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, বড়লেখা পৌরসভার বারইগ্রামের বাসিন্দা খাইরুল ইসলাম সম্প্রতি কুয়েত থেকে দেশে আসেন। নিয়ম অনুযায়ী তাঁর ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার কথা। হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মী ও পৌরসভার লোকজন তাকে কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করার জন্য বলেছেন। কিন্তু তিনি তা মানেননি। এই কয়েকদিন বাইরে ঘোরাফেরা করেন।

এমন অভিযোগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী হাকিম মো. শামীম আল ইমরান তার বাড়ি যান। তবে তাকে ঘরে পাওয়া যায়নি। এরপর তাকে বাড়ির লোকজনের মাধ্যমে খবর দিয়ে আনা হয়। পরে কোয়ারেন্টিন না মানায় তার জরিমানা ও পাসপোর্ট জব্দ করা হয়। বুধবার পর্যন্ত তার কোয়ারেন্টিনে থাকার কথা। তাকে কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অপরদিকে এদিন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা বিভিন্ন এলাকার প্রবাস ফেরতদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ খবর নেওয়া হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রত্নদীপ বিশ্বাস, থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রতন নাথ, উপ পরিদর্শক (এসআই) প্রভাকর রায় ও সহকারী উপ পরিদর্শক (এএসআই) তরুণ মজুমদার।

বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী হাকিম শামীম আল ইমরান বলেন, ‘হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মী ও পৌরসভার লোকজন কয়েক বার বাড়ি গিয়ে তাকে হোম কোয়ারেন্টিন মানার নির্দেশ দেন। কিন্তু তিনি মানেননি। গ্রামে ঘোরাফেরা করতেন। এমন অভিযোগ ছিল। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তার বাড়ি গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। তাকে বাড়ির বাইরে পাওয়া যায়। হোম কোয়ারেন্টিনের নির্দেশনা পালন করেননি। এর পরিপ্রেক্ষিতে তার পাসপোর্ট জব্দ করা হয়। পাশাপাশি দশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। হোম কোয়োরেন্টিনে থাকা অন্য প্রবাসীর বাড়িগুলোও পরিদর্শন করা হয়।’

 

Developed by :