Wednesday, 28 September, 2022 খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |




পিএইচজি প্রাঙ্গণে কবি ফজলুল হকের জানাজা বুধবার ॥ শোক প্রকাশ

বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম: আশির দশকের শক্তিমান কবি ফজলুল হক এর জানাজার নামাজ আগামীকাল বুধবার বেলা দু’টায় পিএইচজি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে। এতে পরিচিত সকলের উপস্থিতি ও দোয়া কামনা করেছেন মরহুমের ভাতিজা আওয়ামী লীগ নেতা জহিরুল হক রাজু।

কবি ফজলুল হক আজ মঙ্গলবার বিকেল সোয়া ৪ টায় সিলেট নগরীর শ্যামলী আবাসিক এলাকার বাসভবনে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬১ বছর। তিনি স্ত্রী, ২ পুত্র, এক কন্যাসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর মৃত্যু খবর মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে দেশ-বিদেশে বসবাসরত শুভাকাক্সিক্ষদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে।

রাত সোয়া ৯ টায় তাঁর লাশ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছলে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। সেখানে বিয়ানীবাজারের বিভিন্ন অঙ্গণের বিশিষ্টজন তাঁর লাশ দেখে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

এদিকে, পিতার মৃত্যুর দিনে তাঁর বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া মেয়ে নুরানী হক বর্ষা’র ছিল জন্মদিন। এ নিয়ে সকালে তার বড় ভাই অলক জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেয়। কিন্তু কে জানে, কয়েক ঘন্টা পরেই বোনের জন্মদিনের আনন্দ, পিতার মৃত্যুতে বিষাদে পরিণত হবে।

কবি ফজলুল হকের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি, সাবেক উপসচিব কবি নাজিম হাসান, সিলেট জেলা জাসদের সভাপতি লোকমান আহমদ, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মো. নাসির উদ্দিন খান, বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান, বিয়ানীবাজার প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি খালেদ জাফরী ও আতাউর রহমান, সাপ্তাহিক বিয়ানীবাজার বার্তা পত্রিকার সম্পাদক ছাদেক আহমদ আজাদ, বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে’র সভাপতি মামুন রশীদ ও সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর কামরুল হোসেন মুন্না, তিলপাড়া ইউনিয়ন ওয়েলফেয়ার এন্ড এডুকেশন ট্রাস্ট ইউকে’র সভাপতি আব্দুল আলিম ও সাধারণ সম্পাদক জুবের আহমদ।

পৃথক শোকবার্তায় নেতৃবৃন্দ মরহুমের রূহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

বিয়ানীবাজারের সাহিত্য-সংস্কৃতি ও সাংবাদিকতা অঙ্গণের এক উজ্জ্বলতম নাম কবি ফজলুল হক। তিনি ১৯৬১ সালের ১লা সেপ্টেম্বর বিয়ানীবাজার পৌর এলাকার কসবা নয়াটিল্লা এলাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি দীর্ঘদিন দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার স্থানীয় সংবাদদাতা এবং সিলেট বেতারের গীতিকার ছিলেন। বিয়ানীবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদকেরও দায়িত্ব পালন করেন। গত বছর বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ থেকে অবসর গ্রহণ করেন ফজলুল হক। এ পর্যন্ত তাঁর প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ: ‘পৃথক দংশন’, ‘কবির জন্মদিন’, ‘শঙ্খ ঘোষের সঙ্গে নির্বাসনের দিনে’। আরেকটি বাক্যগ্রন্থ প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে। সম্পাদনা গ্রন্থ: ‘তপোধীর ভট্টাচার্য : জীবন ও কর্ম’।

একজন সার্থক পিতা ছিলেন কবি ফজলুল হক। তাঁর বড় পুত্র নুরুল ফজল অলক টাঙ্গাইল মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিসংখ্যান বিভাগে এবং দ্বিতীয় মেয়ে নুরানী হক বর্ষা চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে অধ্যয়নরত। এছাড়া তাঁর ছোট পুত্র অমল সিলেট এমসি কলেজে ইন্টার ২য় বর্ষে পড়ালেখা করছে।

 

Developed by :