Wednesday, 28 September, 2022 খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |




বিয়ানীবাজার পৌর নির্বাচন আজ: ভোটার চায় পরিবর্তন না প্রত্যাবর্তন?

ছাদেক আহমদ আজাদ: বিয়ানীবাজার পৌরসভা নির্বাচনের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দিনব্যাপী উপজেলা থেকে নির্বাচনী সামগ্রী কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছানো হয়েছে। প্রত্যেক কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা স্থাপনসহ গ্রহণ করা হয়েছে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা। রাতে কালো টাকা ছড়াছড়ির অভিযোগ পাওয়া গেছে। আবহাওয়া বৈরি না হলে উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এদিকে, কে বসবেন পৌরসভার মসনদে; পরিবর্তন না প্রত্যাবর্তন। কয়েক দিনের প্রচারণা ও আলোচনা শেষে আজ বুধবার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন পৌরসভার ২৭ হাজার ৩৬৯ জন ভোটার। বিকেলে ফলাফল ঘোষণার মধ্য দিয়ে এমন আলোচনার ইতি ঘটবে। ঐদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) একটানা ভোটগ্রহণ চলবে। এতে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১০ জন ও কাউন্সিলর পদে ৫৮ জন।
পৌরসভার মেয়র এর চেয়ারে বসতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. আব্দুস শুকুর (নৌকা), বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদ ’৯৪ এর জিএস ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ফারুকুল হক (চামচ), স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী শহীদ পরিবারের সন্তান ও সাবেক পৌর প্রশাসক মো. তফজ্জুল হোসেন (জগ), উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হাজি আব্দুল কুদ্দুছ টিটু (হেলমেট), জামায়াতে ইসলামী ঘরাণার প্রভাষক আব্দুস সামাদ আজাদ (হ্যাঙ্গার), মো. আব্দুস সবুর (মোবাইল), আওয়ামী লীগ ঘরাণার আহবাব হোসেন সাজু (কম্পিউটার), বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির এডভোকেট আবুল কাশেম (কাস্তে), জাতীয় পার্টির মো. সুনাম উদ্দিন (লাঙ্গল), স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. অজি উদ্দিন (নারিকেল গাছ)।

রাজনীতিবিদ ও সমাজকর্মী মজির উদ্দিন আনসার বলেন, এ নির্বাচনের সবচেয়ে ভালো দিক হলো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতি। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, পৌরসভার উন্নয়ন, পৌরবাসীর সামগ্রীক কল্যাণ যে প্রার্থীর ধারা নিশ্চিত হবে তাঁকেই ভোট দেয়া উচিত বলে তিনি মন্তব্য করেন।

উপজেলা সুজন’র সভাপতি এডভোকেট মো. আমান উদ্দিন বলেন, আমরা একটি অবাধ, সুষ্ঠ, নিরপেক্ষ ও সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন প্রত্যাশা করছি। ইসি ভোট কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করায় নির্বাচনে মানুষের আস্থা কিছুটা হলেও বেড়েছে। তিনি নতুন ইসি’র অধীনে প্রথম নির্বাচনে শতভাগ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার আহ্বান জানান।

পৌর নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে প্রতি ওয়ার্ডে একজন করে মোট ৯ জন ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া প্রতি কেন্দ্রে একজন এসআই এর নেতৃত্বে ৫ জন পুলিশ ও ৯ জন আনসার সদস্য থাকবেন। পাশাপাশি ভ্রাম্যমান টহলে নিয়োজিত থাকবে ২ প্লাটুন বর্ডার গার্ড অব বাংলাদেশ (বিজিবি), র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ও আনসার।

নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারি রিটার্নিং অফিসার সৈয়দ কামাল হোসেন গতকাল রাতে বলেন, নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পন্ন। ইতিমধ্যে কেন্দ্রের দায়িত্ব নিয়েছেন প্রিসাইডিং অফিসার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর সদস্যরা। তিনি উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট সম্পন্ন করতে প্রার্থীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

জানা যায়, কেন্দ্র অনুযায়ী ভোটের হিসেবে বিয়ানীবাজার পৌরসভার শ্রীধরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩৩৫৪ ভোট, কসবা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ২০০২ ভোট, কসবা আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩৬৫৩ ভোট, খাসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ২৬৬৭ ভোট, পিএইচজি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ৩২৮৫ ভোট, বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ২০৪৪ ভোট, বিয়ানীবাজার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ১৯২৮ ভোট, খাসাড়ীপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ২৬০৩ ভোট, নিদনপুর সুপাতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩১৯৯ ভোট ও নিদনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ২৬৩৪ ভোট।

 

Developed by :