Thursday, 6 October, 2022 খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |




বিয়ানীবাজার পৌর নির্বাচন : টিটু-পিন্টু ঐক্য! সবুরে কী মেওয়া ফলবে?

বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম: বিয়ানীবাজার পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদ নিয়ে নানা নাটকীয়তা চলছে। আঞ্চলিক ইস্যুতে একই জোনের একাধিক মেয়র প্রার্থী বসিয়ে একজন করার চিন্তাভাবনা করছেন নিজ নিজ এলাকার চিন্তাশীল ব্যক্তিরা। এ নিয়ে মোটামুটি বৈঠকও শেষ পর্যায়ে। এরমধ্যে শুধুমাত্র শ্রীধরা গ্রামের দু’প্রার্থীর মধ্যে ঐক্য হওয়ার সবুজ সংকেত পাওয়া গেছে। তারপরও আগামী বৃহস্পতিবার মনোনয়ন প্রত্যাহার পর্যন্ত কোন অঞ্চলে কি ঘটবে তা শতভাগ নিশ্চিত করে বলা মুশকিল।

জানা যায়, বিগত বিয়ানীবাজার পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির ধানের শীষ মনোনীত প্রার্থী ছিলেন শ্রীধরা গ্রামের আবু নাসের পিন্টু। তিনি নানা নাটকীয়তার পর বিজয়ী না হলেও নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন। এবারও তিনি মেয়র পদে প্রার্থী হয়েছেন। ব্যাপক জনসমর্থন রয়েছে। কিন্তু বিগত নির্বাচনের সঞ্চিত অভিজ্ঞতা থেকে শেষ পর্যন্ত তার নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর সম্ভাবনা বেশি।

ইতিমধ্যে, গ্রামের অপর প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হাজি আব্দুল কুদ্দুছ টিটুর অনুরোধে। আজ মঙ্গলবার রাতে তিনি ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন। তবে, আগামীকাল বুধবার রাতে তিনি শ্রীধরা-নবাং গ্রামের বৈঠক আহ্বান করেছেন। এ বৈঠকে আবু নাসের পিন্টু নির্বাচন ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিবেন।

শেষ পর্যন্ত আবু নাসের পিন্টু যদি আব্দুল কুদ্দুছ টিটুকে সমর্থন করেন তাহলে নির্বাচনের পুরো চিত্র পাল্টে যাবে। এক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেন নবাং গ্রামের অপর মেয়র প্রার্থী আব্দুস সবুর। নানাবিধ হিসেব নিকেশ ও ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে অন্তিম মুহূর্তে তিনিও এক মেরুতে দাঁড়াতে পারেন! যদি সকল জল্পনা-কল্পনা শেষে টিটু-সবুর ঐক্য হয় তাহলে এ অঞ্চল নির্বাচনে নিয়ামক শক্তি হিসেবে আবির্ভূত হবে। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা এমনটাই মনে করছেন। নানা কারণে পৌরবাসীও সেদিকে চেয়ে আছেন।

অন্যদিকে, আঞ্চলিকতা ইস্যুতে অপর দু’অঞ্চলে ঐক্য প্রক্রিয়া এখনো আলোর মুখ দেখেনি। শেষ পর্যন্ত ঐক্য কতটুকু হবে, এ নিয়েও উদ্যোক্তারা চিন্তিত। তবে, ঐক্য যে হবে না, তা বলা মুশকিল।

উল্লেখ্য, আগামী ২৭ মে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হবে। আগামী মাসের ১৫ তারিখ ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (এভিএম) ভোট হবে।

 

Developed by :