Monday, 26 September, 2022 খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |




বিয়ানীবাজার থেকে চুরি যাওয়া মোটরসাইকেল উদ্ধার, গ্রেফতার ৩

বিয়ানীবাজার: বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গন থেকে প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয়ের অধীনে বরাদ্দকৃত একটি সরকারি মোটরসাইকেল চুরির ৪৮ ঘন্টার মধ্যেই চোরাই গাড়ি উদ্ধার এবং আন্তঃবিভাগ মোটরসাইকেল চোরচক্রের দুই পেশাদার সদস্যসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে বিয়ানীবাজার থানা পুলিশ। শুক্রবার সিলেট নগরীর চৌহাট্টা ও বালাগঞ্জ উপজেলায় একাধিক অভিযান চালিয়ে বিয়ানীবাজার থানা পুলিশের একটি বিশেষ দল তাদেরকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃত দুই পেশাদার মোটরসাইকেল চোর হচ্ছে- সুনামগঞ্জের আনোয়ারপুর গ্রামের ইসলাম উদ্দিন তালুকদারের ছেলে মো. ফয়েজ তালুকদার (৩০) ও সিলেটের কুমারগাও শেখপাড়া এলাকার তরান মিয়ার ছেলে শুক্কুর মিয়া(২৫)। তারা দুজনেই আন্তঃবিভাগ মোটরসাইকেল চোরচক্রের অন্যতম সদস্য। তাদের দুজনের মধ্যে মো. ফয়েজ আহমদ তালুকদারের বিরুদ্ধে সিলেট, সুনামগঞ্জ ও মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন থানায় আটটি মামলা ও শুক্কুর মিয়ার বিরুদ্ধে তিনটি মামলা রয়েছে। এছাড়া গ্রেপ্তার হওয়া অন্য আরেকজন হচ্ছে- বালাগঞ্জের তালতলা গ্রামের নেওয়াজের ছেলে আলী হাসান (১৭)।

জানা গেছে, গত ১৬ মার্চ বিকালে বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গন থেকে হিরো ব্যান্ডের হাঙ্গ ১৫০ সিসি মোটরসাইকেলটি চুরির ঘটনা ঘটে। স্থানীয় প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয়ের কর্মচারীর দেয়া ভাষ্যমতে, তিনি গাড়িটি পার্কিং করে রেখে অফিসে যান। এরপর কিছুক্ষণ পর ফিরে এসে দেখতে পান, গাড়িটি চুরি হয়ে যায়। পরে এ ঘটনায় বিয়ানীবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের হলে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরায় ধারণ হওয়া ছবির সূত্র ধরে শুক্রবার রাত ৮টায় সিলেট নগরীর চৌহাট্টা এলাকা থেকে ফয়েজ ও শুক্কুরকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরবর্তীতে তাদের দেয়া তথ্যমতে, ওইদিন রাত ১২টার দিকে বালাগঞ্জ উপজেলার আজিমপুর বাজার থেকে চোরাই মোটরসাইকেলসহ আলী হাসানকে গ্রেপ্তার করা হয়।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দুই মোটরসাইকেল চোরকে গ্রেফতারকালে তাদের কাছে থেকে বেশ কয়েকটি চাবি উদ্ধার করা হয়। এসব চাবি দিয়ে মোটরসাইকেলের যেকোন ধরনের লক আনলক করা সম্ভব। মোটরসাইকেল চোরচক্রের কাছে এই চাবিগুলো ‘সীম’ কোড নামে পরিচিত। সিলেটের আন্তঃবিভাগীয় চোরচক্রের একজন মূলহোতা এই ‘সীম’ চক্রের সকল সদস্যদের কাছে সরবরাহ করেন।

এ ব্যাপারে বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ হিল্লোল রায় বলেন, গ্রেফতারকৃত তিনজনের মধ্যে ফয়েজ তালুকদার ও শুক্কুর মিয়া আন্তঃবিভাগীয় মোটরসাইকেল চোরচক্রের সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও সিলেট জেলার বিভিন্ন থানায় ৮টি মামলা রয়েছে। তিনি আরও জানান, আটককৃতদের শনিবার দুপুরে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, আটক দুই পেশাদার চোরের কাছ থেকে বেশ কিছু তথ্য উদঘাটন করা হয়েছে। বিশেষ করে মোটরসাইকেলের সবধরনের লক আনলক করার ‘সীম’ সরবরাহকারীকে গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি। তবে তদন্তের স্বার্থে তিনি ‘সীম’ সরবরাহকারী সিন্ডিকেটের নাম জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

 

Developed by :