Tuesday, 26 January, 2021 খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




আনুশকাকে চেতনানাশক প্রয়োগ করা হয়েছিল: ফরেনসিক বিভাগ

বার্তা ডেস্ক: রাজধানীর মাস্টারমাইন্ডের শিক্ষার্থী আনুশকাকে ধর্ষণের আগে চেতনানাশক বা টক্সিন ধরনের কিছু খাওয়ানো হয়েছিল বলে নিশ্চিত ঢাকা মেডিকেলের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ। বিকৃত মানসিকতার অস্বাভাবিক আচরণের কারণে আনুশকার মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা তার।

এদিকে, মামলার সুষ্ঠু তদন্ত নিয়ে শঙ্কায় আনুশকার মা। শুধু দিহান নয়, ধর্ষণ ও হত্যায় আরো অনেকে জড়িত বলেও অভিযোগ তার। তবে, দায়ীদের সাজার নিশ্চয়তা দিয়েছে পুলিশ।

মেয়েকে ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনা কোনোভাবেই মানতে পারছে না আনুশকার মা। সুপরিকল্পিতভাবে তার মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে বলে জানান তিনি। আনুশকা হত্যায় জড়িত অন্যদেরও বিচার দাবি করেন এই হতভাগ্য মা। তিনি বলেন, শুধু দিহান নয়, যারা যারা এই হত্যাকান্ডে জড়িত, তাদের প্রত্যেকেরই শাস্তি হতে হবে।

এদিকে, ঢাকা মেডিকেলের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডাক্তার সোহেল মাহমুদ জানালেন, ধর্ষণের সময় ভিন্ন ধরণের ডিভাসই ব্যবহার করা হয়েছে। তাতে মৃত্যু হয় আনুশকার।

মামলার তদন্তে অগ্রগতির দাবি করে পুলিশ জানিয়েছে, দিহানের বাসার কেয়ারটেকারকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আদালতের আদেশে পরীক্ষা করা হবে মামলার একমাত্র আসামি দিহানের ডিএনএ। তথ্য-আলামত দৃষ্টে দ্রুত সময়ের মধ্যেই চাঞ্চল্যকর এ মামলার বিচার শুরুর আশা পুলিশের।

এদিকে, মঙ্গলবার সকালে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলার একমাত্র আসামি ফারদীন ইফতেখার দিহানের বাসার দারোয়ান দুলাল ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদের আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন।

 

Developed by :