Tuesday, 26 January, 2021 খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




করোনায় চান্দগ্রামে ফুটবল টুর্নামেন্ট! বিরূপ প্রতিক্রিয়া ॥ প্রশাসনের নির্দেশ উপেক্ষিত

বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম: বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতির দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় নড়েচড়ে উঠেছে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসন। এ নিয়ে গ্রহণ করা হয়েছে বিভিন্ন সতর্কতামূলক ব্যবস্থা। কিন্তু বড়লেখা উপজেলায় উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ ওঠেছে।

করোনার কারণে যেখানে ওয়াজ মাহফিল, মেলা ও উৎসব বন্ধ, সেখানে আগামী মঙ্গলবার চান্দগ্রাম ৪র্থ নকআউট ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন হবে। হাজার হাজার দর্শক সমাগম ঘটাতে দিনরাত চলছে মাইকিং, বিলি করা হচ্ছে প্রচারপত্র। এ নিয়ে উপজেলাজুড়ে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। 

টুর্নামেন্টের দাওয়াতপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, বড়লেখার চান্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন মাঠে মঙ্গলবার বেলা ২ টায় টুর্নামেন্টের উদ্বোধন হবে। অনুষ্ঠানে বড়লেখা ও বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, বড়লেখা পৌরসভার মেয়র, সংশ্লিষ্ট এলাকার কয়েকজন ইউপি চেয়ারম্যানসহ বিশিষ্টজনকে অতিথি করা হয়েছে। টুর্নামেন্টে মোটররসাইকেল, ফ্রিজসহ বেশক’টি উন্নতমানের পুরস্কার রয়েছে।

তবে, করোনা পরিস্থিতিতে চিঠিতে উল্লেখিত কয়েকজন অতিথি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যাবেন না বলেও এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে জানিয়েছেন।

সূত্রমতে, চান্দগ্রাম ৪র্থ ফুটবল টুর্নামেন্টের প্রধান পৃষ্ঠপোষক উপজেলা চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ। তিনি বিগত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে ‘বঙ্গবন্ধুর নৌকা’কে হারিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

এ বিষয়ে বড়লেখা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, করোনার মধ্যে চান্দগ্রামে ফুটবল টুর্নামেন্ট হওয়া সম্পর্কে আমার জানা নেই। আমি পুলিশ পাঠিয়ে খোঁজখবর নিচ্ছি। মঙ্গলবার খেলা উদ্বোধনের আয়োজন হলে তা অবশ্যই বন্ধ করে দিব।

সচেতন মহলের মতে, বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনাভাইরাসের প্রথম ধাপ সফলতার সাথে অতিক্রম করেন। দ্বিতীয় ধাপ মোকাবেলায়ও তাঁর সরকার নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করে। এরই আলোকে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসন বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতির দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করে প্রত্যেক উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে তা কার্যকরের নির্দেশ দেয়।

কিন্তু স্থানীয় প্রশাসন তা আমলে নিচ্ছে বলে মনে হয়নি। নতুবা ঢাকঢোল পিটিয়ে ‘চান্দগ্রাম ৪র্থ নকআউট ফুটবল টুর্নামেন্ট’র আয়োজন এবং উদ্বোধনের তারিখ ঘোষণা করা হলেও রহস্যজনক কারণে প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না কেন? তারা করোনা সংক্রমণরোধে জরুরি ভিত্তিতে ফুটবল টুর্নামেন্ট বন্ধের দাবি জানান।

চান্দগ্রাম যুব সমাজ এ টুর্নামেন্টের আয়োজন করে।

জানা যায়, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসন জনসমাগম এড়াতে ওয়াজ মাহফিল, কীর্তন, মেলা, উৎসব ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজনের অনুমতি না দিতে এবং নজরদারি অব্যাহত রাখতে উপজেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছে। গত বছরের ১৭ ডিসেম্বর জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মীর নাহিদ আহসান স্বাক্ষরিত সতর্কতামূলক এ চিঠি উপজেলা প্রশাসনে প্রেরণ করা হয়।

একইভাবে, জেলা প্রশাসনের চিঠির আলোকে বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শামীম আল ইমরান একই বছরের ২৬ ডিসেম্বর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, থানা অফিসার ইনচার্জ, বড়লেখা পৌরসভার মেয়র ও উপজেলাধীন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের লিখিতভাবে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য অবগতিপত্র প্রেরণ করেন।

এরপরও বড়লেখা উপজেলার নিজ বাহাদুরপুর ইউনিয়নে ‘চান্দগ্রাম ৪র্থ নকআউট ফুটবল টুর্নামেন্ট’ আয়োজন করায় জনমনে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। খেলায় সহস্র মানুষের সমাগম থেকে করোনাভাইরাসের নতুন সংক্রমণ ঘটলে তা স্থানীয় ও উপজেলা প্রশাসনকে দায়ভার নিতে হবে বলেও এলাকার মানুষ মন্তব্য করেন। তবে কেউ প্রকাশ্যে কোন কথা বলতে নারাজ।

সার্বিক বিষয়ে বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শামীম আল ইমরান বলেন, করোনার মধ্যে জনসমাগম না ঘটানোর নির্দেশ রয়েছে। এ অবস্থায় চান্দগ্রামে ফুটবল টুর্নামেন্টের অনুমতি চাওয়া হয়নি, এজন্য আমার জানা নেই। তিনি বলেন, এ অবস্থায় ফুটবল টুর্নামেন্ট করা হবে আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত এবং  সরকারের নির্দেশ পরিপন্থী। খেলা বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছেন বলেও জানান ইউএনও এমরান। তিনি সবাইকে করোনা সংক্রান্ত সরকারের নির্দেশ মেনে চলার আহ্বান জানান।

 

Developed by :