Thursday, 22 October, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ৭ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




হাওরের বুকে অল ওয়েদার সড়ক উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বার্তা ডেস্ক: ‘শুকনার দিনের পাও (পা), বর্ষার দিনের নাও, একেই বলে ভাটি এলাকার গাঁও’—এই প্রবাদটিই এক সময় ছিল মানুষের মুখে মুখে। তবে সম্প্রতিকালে বদলে যাচ্ছে এই চিত্র, বিশাল হাওরের বুকে নতুন মাত্রা যোগ হবে নান্দনিক মহাসড়ক। এর ফলে কিশোরগঞ্জের হাওর উপজেলা ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রামে অল ওয়েদার সড়কের মাধ্যমে পর্যটনের অপার সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হচ্ছে।

কিশোরগঞ্জের হাওর অধ্যুষিত ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলা যেন সৌন্দর্যের লীলাভূমি। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে সারাবছর চলাচল উপযোগী দৃষ্টিনন্দন অল ওয়েদার সড়ক। স্থানীয়ভাবে ‘আবুরা’ সড়ক নামে পরিচিত এটি। হাওরের প্রকৃতি পরিবেশ, বিস্তৃত জলরাশি উপভোগ করতে প্রায় প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটক সমাগম হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে অল ওয়েদার সড়কের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এতে সারাবছর সড়ক পথে যাতায়াত করাসহ সুযোগ পেল হাওরবাসী।

গণভবন প্রান্তে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস। শুরুতে উদ্বোধনকৃত প্রকল্পের উপর ভিডিও চিত্র ও সংক্ষিপ্ত উপস্থাপনা করেন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম। এছাড়া গণভবন প্রান্তে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। মিঠামইন প্রান্ত থেকে মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা ইয়াকুব আলী।

ঢাকার গণভবন থেকে মিঠামইনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ মিলনায়তনে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী। মিঠামইন প্রান্তে জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন। এতে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড কামরুল আহসান শাহজাহান, স্থানীয় সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, চৌধুরীসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।।

কিশোরগঞ্জের হাওরগুলোর চিরায়ত রূপের বাহারে নতুন সংযুক্তি ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম অলওয়েদার সড়ক। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের ঐকান্তিক আগ্রহে নির্মিত হাওর অধ্যুষিত ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলা সদরের মধ্যে সংযোগ রক্ষাকারী ২৯ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়কটি উদ্বোধনের মাধ্যমে যুগের পর যুগ ধরে অবহেলিত হাওরবাসীর জন্য যোগাযোগের ক্ষেত্রে এক নবদিগন্তের উন্মোচন হবে।

এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে যুক্ত হবে সফলতার আরও একটি নতুন মাত্রা যোগ হল। ৮৭৪ কোটি ৮ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই সড়কটি ভবিষ্যতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সঙ্গে যুক্ত করা হবে।

মহাসড়ক অবকাঠামো নির্মাণের মাধ্যমে দেশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখার স্বার্থে এবং জনগণের আর্থসামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে দ্রুত, নিরবচ্ছিন্ন ও নিরাপদ মহাসড়ক নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার নিমিত্ত সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কিশোরগঞ্জ জেলার হাওর অধ্যুষিত ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম তিন উপজেলায় ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম সড়ক নির্মাণ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেছে।

এই প্রকল্পের আওতায় ৮৭৪ দশমিক ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ২৮ দশমিক ৭৭০ কিলোমিটার হার্ডসোল্ডারসহ ফ্লেক্সিবল পেভমেন্ট নির্মাণ, ৫৯০ দশমিক ৪৭ মিটার দীর্ঘ তিনটি পিসি গার্ডার নির্মাণ, ১৯০ মিটার দীর্ঘ ৬২টি আরসিসি বক্স কালভার্ট নির্মাণ, ২৬৯ দশমিক ৬৮ মিটার দীর্ঘ ১১টি আরসিসি গার্ডার ব্রিজ নির্মাণ ও ৭ দশমিক ৬০ লাখ বর্গমিটার সিসি ব্লক দ্বারা স্লোপ প্রটেকশন কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

রাষ্ট্রপতি ২০১৬ সালের ৪ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম প্রকল্পের নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন। গত ২০ জুলাই গাড়িতে চড়ে তিনি কিশোরগঞ্জের ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম অলওয়েদার সড়ক পরিদর্শন করেন। একটা সময় হাওর ছিল শহর থেকে বিচ্ছিন্ন একটি জনপদ। যেখান থেকে একমাত্র যাতায়াতের বাহন ছিল নৌকা, লঞ্চ বা স্টিমার।

কিন্তু এসব কিছু যেন এখন সোনালি অতীত। অল ওয়েদার সড়ক হাওর এলাকার বাসিন্দাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। ফসল আনা নেওয়া, শিক্ষা, ব্যবসাসহ সব ক্ষেত্রে লেগেছে আধুনিকতার ছোঁয়া। আগামীতে সড়কটি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর পর্যন্ত বৃদ্ধির মাধ্যমে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সঙ্গে যুক্ত হবে কিশোরগঞ্জের হাওরাঞ্চল।

 

Developed by :