Thursday, 29 October, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




শিক্ষক ও মুক্তিযোদ্ধা তিমির বরণ পাল চৌধুরী আর নেই, শোক প্রকাশ

বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম: বিয়ানীবাজার উপজেলার মাথিউরা দ্বি-পাক্ষিক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষক বীর মুক্তিযোদ্ধা তিমির বরণ পাল চৌধুরী (৭৮) আর নেই।

শুক্রবার দুপুর ১২ টায় তিনি ভাড়াটিয়াস্থ বাসায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। দীর্ঘদিন থেকে তিনি দুরারোগ্য নানা ব্যাধিতে ভোগছিলেন।

তিমির বরণ পাল চৌধুরী বিয়ানীবাজার সাংস্কৃতিক কমান্ডের নাট্যকর্মী ও খাসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক তন্ময় পাল চৌধুরীর (তিলক) বাবা।

এদিকে, প্রবীণ শিক্ষক তিমির বরণ পাল চৌধুরীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি।

এক শোক বার্তায় তিনি মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

এছাড়াও শোক প্রকাশ করেছেন, বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের সদ্য সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক দ্বারকেশ চন্দ্র নাথ, সিলেট জেলা জাসদের সভাপতি লোকমান আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান, শিক্ষাবিদ মজির উদ্দিন আনসার, শিক্ষক ও সাংবাদিক খালেদ জাফরী, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বদরুল ইসলাম সুয়েব, যুক্তরাষ্ট্র মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি বিশিষ্ট শিল্পপতি মো. আবুল হোসেন, বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান ও সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল, সাবেক সভাপতি হাজি আব্দুল হাছিব মনিয়া, সিলেটস্থ বিয়ানীবাজার সমিতির সভাপতি ডা. ফয়েজ উদ্দিন আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মহব্বত খান, বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে’র সভাপতি মামুন রশীদ ও সাধারণ সম্পাদক কামরুল হোসেন মুন্না, জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইউকে’র সাংগঠনিক সম্পাদক জুবের আহমদ, সাপ্তাহিক বিয়ানীবাজার বার্তা পত্রিকার সম্পাদক ছাদেক আহমদ আজাদ, বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জামাল হোসেন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, শিক্ষক তিমির বরণ পাল চৌধুরী মহান স্বাধীনতা সংগ্রাম শেষে স্বাধীন দেশে শিক্ষক পেশায় আত্মনিয়োগ করেন। তিনি ১৯৭৪ সালে মাথিউরা দ্বিপাক্ষিক উচ্চ বিদ্যালয়ে গণিতের শিক্ষক হয়ে যোগ দান করেন। একই বিদ্যালয় থেকে তিনি অবসরে যান ২০০৮ সালে।

 




Developed by :