Thursday, 9 July, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




মুজিববর্ষ শুরু: লাল-সবুজে সেজেছে সিলেট

সিলেট: ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আজ ১৭ মার্চ মহান এই নেতার জন্মের শত বছর পূর্ণ হবে। শুরু হচ্ছে ‘মুজিববর্ষ’। লাল সবুজের এই স্থপতির জন্ম শতবর্ষকে স্বাগত জানাতে সিলেট নগরীতে করা হয়েছে বর্ণিল আলোকসজ্জা।

লাল ও সবুজকে প্রাধান্য দিয়ে সিলেটের সকল সরকারি-বেসরকারি গুরুত্বপূর্ণ কার্যালয়কে রঙিন করা হয়েছে। পুরো সিলেট নগরীই যেন সেজেছে লাল-সবুজে।

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মদিন উপলক্ষে কিনব্রিজ, সার্কিট হাউজ, আলী আমজাদের ঘড়ি, বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়, নাগরী চত্বর, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, সিলেট জেলা পরিষদ কার্যালয়, সিটি করপোরেশন, সিলেটের আদালতপাড়া, মহানগর পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়, জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়, বাংলাদেশ ব্যাংক, গণপূর্ত ভবন, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের কার্যালয়, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন, বিটিসিএল কার্যালয়সহ বিভিন্ন সরকারী স্থাপনাকে লাল সবুজের আলোকসজ্জায় সাজানো হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, সিলেট সিটি করপোরেশন, জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী সংগঠন নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। বড় পরিসরে অনুষ্ঠানগুলো করার কথা থাকলেও করোনাভাইরাস সংক্রমণের শঙ্কায় এখন ছোট পরিসরে অনুষ্ঠানটি উদযাপন করা হবে।

২০১৯ সালের ১২ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের যৌথ সভায় মুজিববর্ষ উদযাপনের সিদ্ধান্ত হয়েছিল। ওই সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছিল, ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত সরকার মুজিববর্ষ উদযাপন করবে। দেশের বাইরে উদযাপিত হবে জন্মশতবার্ষিকী ও মুজিববর্ষ শুরুর আনন্দ আয়োজন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠানটিও ছোট পরিসরে করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাত ৮টায় বঙ্গবন্ধুর জন্মসময় অনুযায়ী আতশবাজির আয়োজন থাকবে সারা দেশে। তবে কর্মসূচিগুলোতে জনসমাগম এড়িয়ে চলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

ইউনেস্কোর সদর দপ্তর প্যারিসে অনুষ্ঠিত ইউনেস্কোর ৪০তম সাধারণ অধিবেশনে সর্বসম্মতিক্রমে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যার ফলে ইউনেস্কোভুক্ত বিশ্বের ১৯৫টি দেশে উদযাপন করা হবে জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী। ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত মুজিব বর্ষের বিশ্বস্বীকৃতি দেয় ইউনেস্কো। এর ফলে ইউনেস্কো বা এর ১৯৫ সদস্যরাষ্ট্রের সঙ্গে যৌথ বা দ্বিপক্ষীয়ভাবে এই দিবসটি উদযাপন করতে পারবে বাংলাদেশ।

এছাড়াও বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে স্মৃতি জড়িয়ে আছে এমন শহর ছাড়াও বাংলাদেশিরা বসবাস করেন যেসব শহরে, সেসব শহরেও নানা আয়োজন করা হয়েছে।

 

Developed by :