Sunday, 31 May, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




সিলেটে আ’লীগের মুজিববর্ষের উদ্বোধন: ফুটে উঠছে সৃজন ও মননের প্রতিচ্ছবি

সিলেট: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ ঢাকায় রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) ঐতিহাসিক এক ভাষণ দিয়েছিলেন। যে ভাষণে বপিত ছিল বাংলাদেশের স্বাধীনতার বীজ। ইউনেস্কো তাঁর সেই ভাষণকে ‘বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ’ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। বিশ্বের অনন্য সাধারণ যতো ভাষণ আছে, তন্মধ্যে বঙ্গবন্ধুর এই ভাষণ অন্যতম।

বঙ্গবন্ধু যেদিন এই ভাষণ দেন, সেদিন লাখো মুক্তিকামী বাঙালি জড়ো হয়েছিলেন রেসকোর্স ময়দানে। তাদের মধ্যে ছিলেন সিলেটের অনেক মানুষ।

ময়দানে বসে সেই ঐতিহাসিক ভাষণ শোনা ১০ জনকে খোঁজে তাঁদেরকে বিশেষ সম্মাননা জানিয়েছে সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ। আজ শনিবার বিকালে নগরীর রিকাবিবাজারে জেলা স্টেডিয়ামের বহিরাঙ্গনে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাঁদেরকে সম্মাননা জানানো হয়। এই অনন্য উদ্যোগের মধ্য দিয়েই বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘মুজিববর্ষ’র ২০ দিনব্যাপী কার্যক্রম শুরু করেছে সিলেট আওয়ামী লীগ।

যে ১০ জনকে সম্মাননা দেওয়া হয়েছে, তাঁরা হলেন- বীর মুক্তিযোদ্ধা নিজাম উদ্দিন লস্কর ময়না, বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা ছাদ উদ্দিন আহমদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা বাবরুল হোসেন বাবুল, আওয়ামী লীগ নেতা মোশাররফ হোসেন, তোফাজ্জল হোসেন হেলাল, হায়দার হোসেন চৌধুরী মুক্তা, অধ্যাপক গ ক ম আলমগীর, অ্যাডভোকেট মো. মইনুল ইসলাম ও মো. মঞ্জু মিয়া।

তাঁদেরকে উত্তরীয় ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

‘নব প্রজন্মের নবচেতনায় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগানে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ও সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এমপি।

অনুষ্ঠানে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম নাদেল, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট লুৎফুর রহমান প্রমুখ।

অনুষ্ঠান যৌথভাবে সঞ্চালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন।

বঙ্গবন্ধুর সেই ভাষণ শোনা ওই ১০ ব্যক্তি নিজেদের স্মৃতিচারণও করেন অনুষ্ঠানে। সম্মাননা পেয়ে নিজেদের আবেগ আর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তাঁরা।

এদিকে, ৭ই মার্চের আদলে তৈরি করা মঞ্চে বঙ্গবন্ধুর সেই ভাষণ প্রচারের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এর আগে জেলা স্টেডিয়ামের বহিরাঙ্গনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি উন্মোচন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

 




Developed by :