Saturday, 22 February, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




টিলাগড়ে খুনের মামলা হয়নি

দীপ শ্মশানে সহপাঠীরা পিকনিকে!

ছাদেক আহমদ আজাদ: কলেজ সহপাঠীদের সাথে যখন পিকনিকে আনন্দ উৎসবে থাকার কথা; ঠিক তখনই শ্মশানঘাটে হয়েছে তার সৎকার। এমন বেদনাবিধূর খবর সহপাঠি কেন? রক্ত-মাংসে গড়া যেকোন মানুষের হৃদয়কে নাড়া দিবে। আর যদি পিতা-মাতার একমাত্র সন্তান সন্ত্রাসী হামলায় খুন হয়! তাহলে ঐ পরিবারের অবস্থা কী হবে, তা সহজেই অনুমেয়।

তেমনই একটি হৃদয়বিদারক নৃশংস ঘটনা ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার নগরীর টিলাগড়ে। ঐদিন রাতে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে গ্রীণহিল স্টেট কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র অভিষেক দে দীপ (১৮) খুন হয়। অথচ পরদিন শুক্রবার একই কলেজের পিকনিক উৎসবে সহপাঠীদের সাথ তার ছবিও শোভা পেত। নানা রঙের ছবি ভাইরাল হতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ অন্যান্য মাধ্যমে। কিন্তু বিধি বাম!

গতকাল শুক্রবার গ্রীণহিল স্টেট কলেজের পূর্বনির্ধারিত পিকনিক হয়েছে শ্রীমঙ্গলে। চা পাতা আর সবুজের নজরকাড়া দৃশ্যের অজস্র গ্রুপ ছবি তোলা হলেও সেখানে ছিলনা শুধু দীপের ছবি। এ নিয়ে সহপাঠিদের মধ্যে যে কথা হয়নি, তা-কিন্তু নয়। দীপকে হারিয়ে তারা হয়েছেন অশ্রুসিক্ত, আবেগময়। ততক্ষণে শ্মশানঘাটে দীপের পুরো শরীর আগুনে পুড়িয়ে ছাই হয়েছে! এ নশ্বর পৃথিবীতে তার দেখা, পরিবার কিংবা সহপাঠি আর কেউ পাবে না।

এদিকে, শিক্ষার্থী অভিষেক দে দীপ খুন হলেও গ্রীণহিল স্টেট কলেজের বার্ষিক বনভোজন বাতিল করা হয়নি। কলেজ কর্তৃপক্ষের উদাসীনতাকে অনেকেই বাঁকা চোখে দেখছেন। এ নিয়ে কেউ কেউ ফেসবুক কিংবা অনলাইন মাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেছে।

এ প্রসঙ্গে কলেজের কো-অর্ডিনেটর পলাশ চক্রবর্তী গণমাধ্যমে বলেন, ‘আমরা বার্ষিক পিকনিক বাতিল করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তাৎক্ষণিকভাবে সকল শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের বিষয়টি জানানো সম্ভব হয়নি। তিনি বলেন, ‘আমরা দীপকে হারিয়ে শোক অনুভব করছি। এমনকি কলেজ কর্তৃপক্ষ দীপ হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করছে।’

জানা যায়, নগরীর টিলাগড় এলাকায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহত কলেজ ছাত্রলীগ কর্মী অভিষেক দে দীপকে সৎকার করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে চালিবন্দর শ্মশানঘাটে তার সৎকার্য সম্পন্ন হয়। এর আগে ময়নাতদন্ত শেষে পুলিশ নিহতের পিতা দিপক দে’র কাছে পুত্রের মরদেহ হস্তান্তর করে। নৃশংস এ খুনের ঘটনায় আটক সমুদ্র রায় সৈকত পুলিশ হেফাজতে এবং গুরুতর আহত শুভ কর সৌরভ ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় থানায় মামলা কিংবা নতুন করে কাউকে আটকের খবর পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে শাহপরাণ থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী গতকাল রাতে সিলেটের ডাক’কে জানান, পরিবারের সদস্যরা বিকেলে নিহত দীপের সৎকার্য সম্পন্ন করেছেন।

তিনি জানান, একমাত্র পুত্রকে হারিয়ে নিহতের পিতা দিপক দে ক্লান্ত রয়েছেন। তার সাথে কথা হয়েছে এবং আমাকে (ওসি) জানিয়েছেন, রাতে সম্ভব না হলে শনিবার যেকোন সময় তিনি থানায় মামলা দায়ের করবেন।

ওসি কাইয়ুম চৌধুরী আরো জানান, পুরো বিষয়টি পুলিশের পর্যবেক্ষণে রয়েছে। কোন অবস্থাতেই অপরাধীরা ছাড় পাবে না। মামলার আলোকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, সরস্বতী পূজায় উত্তোলিত টাকার হিসেব নিয়ে বিরোধের জেরে বৃহস্পতিবার রাতে খুন হন কলেজ ছাত্রলীগ কর্মী অভিষেক দে দীপ। সে শিবগঞ্জের সাদিপুরের বাসিন্দা এবং জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট রণজিত সরকার বলয়ের একনিষ্ট কর্মী।

 

Developed by :