Monday, 24 February, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ১২ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




শফি সামি ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের চেয়ারম্যান নির্বাচিত

ঢাকা: খ্যাতিমান কূটনীতিক ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা সি এম শফি সামি ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক (ইউএপি) এর বোর্ড অব ট্রাস্টিজ এবং ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক ফাউন্ডেশন (ইউএপিএফ) এর বোর্ড অব গভর্নরস এর চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

সম্প্রতি সাবেক চেয়ারম্যান মঞ্জুর আহমেদ চৌধুরীর কাছ থেকে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন তিনি।

সি এম শফি সামি বাংলাদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির সাবেক সভাপতি। ২০০৬ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ছিলেন। তৎকালীন দুই রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতার সাথে আলোচনার দায়িত্ব তার ওপর অর্পিত হয়েছিল এবং সবার কাছে গ্রহণযোগ্য অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের সম্মতি অর্জনে তিনি সফল হন। কিন্তু তা বাস্তবায়নে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদের সঙ্গে মতবিরোধ দেখা দেয়ায় নীতির প্রশ্নে আপস না করে শফি সামি তত্ত্বাবধায়ক সরকার থেকে পদত্যাগ করেন।

২০০১ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টার বিশেষ সহকারী হিসেবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন। ওই সময় ৯/১১ সন্ত্রাসী হামলার পরে দক্ষতার সাথে দেশের বৈদেশিক সম্পর্ক পরিচালনা করেন।

সি এম শফি সামি ১৯৯৯ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব ছিলেন। তিনি আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল মর্যাদায় জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক সিভিল সার্ভিস কমিশনের সদস্যও ছিলেন।

তিনি পাকিস্তান, চীন, সৌদি আরব এবং ভারতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত বা হাই কমিশনার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

ভারতে বাংলাদেশের হাই কমিশনার থাকা অবস্থায় তিনি বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ঐতিহাসিক গঙ্গা চুক্তি স্বাক্ষরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

সিএম শফি সামি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক হিসাবে সার্ক প্রতিষ্ঠার জন্য কৌশল অবলম্বন এবং সার্ক সনদ খসড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

তিনি প্রথম সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের প্রধান সমন্বয়ক হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেন এবং সেই সম্মেলনের উপ-মহাসচিব ছিলেন।

পর্ষদে অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ শরিফুল ইসলাম সিনিয়র সহ সভাপতি, মোহাম্মাদ নজরুল ইসলাম ও তাশমিম শায়েরা মঈন সহ সভপতি ও আলমজেব ফারজাদ আহমেদ কোষাধ্যক্ষ নির্বাচিত হয়েছেন।

 

Developed by :