Wednesday, 3 June, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




ভালো পত্রিকায় লেখার উপায় — তন্ময় ভট্টাচার্য

তন্ময় ভট্টাচার্য

লেখালেখি শুরু করার পর আমার কাছে অনেকেই জানতে চেয়েছেন একটি ভালো পত্রিকায় কীভাবে লেখালেখি শুরু করা যায়। কিছুদিন থেকে ভাবছি এ সম্পর্কে একটি লেখা লিখলে হয়তো অনেকেই উপকৃত হবেন, হয়তো অনেকেই জানতে পারবেন তাঁদের সুপ্ত প্রতিভা বিকাশের কৌশল। তাই, লেখালেখি নিয়ে লিখতে বসে আমি আমার সম্পূর্ণ বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে কিছু বিষয় লিখতে চাই।

সর্ব প্রথমই আমি সবার একটি কমন অভিযোগের বিষয়ে বলতে চাই। কারণ যাঁরাই আমার সাথে এ বিষয়ে কথা বলেছেন তাঁদের মোটামোটি সবার একই অভিযোগ- তাঁদের লেখা যতেষ্ট মানসম্পন্ন হওয়ার পরও ভালো পত্রিকা তাঁদের লেখা ছাপায় না। তাঁদের মতে, ভালো পত্রিকা শুধু প্রতিষ্ঠিত লেখকদের বা সম্মানী মানুষের লেখা ছাপায়। আমি তাঁদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, ২০১৮ সালের ৯ই ফেব্রুয়ারি কয়েকটি দৈনিক পত্রিকাতে ‘বই, বইয়ের মেলা’ শিরোনামে প্রকাশিত কলামে জনপ্রিয় লেখক Muhammed Zafar Iqbal বলেন, ‘নুতন লেখকদের সবসময়েই বলতে শোনা যায় তারা নুতন লেখক, বলে কেউ তাদের লেখা ছাপতে চায় না। এই অভিযোগটি অনেক পুরানো, মানিক বন্দোপাধ্যায় সেটি মানতে রাজী ছিলেন না। তার বন্ধুদের বলেছিলেন অভিযোগটি সত্যি নয়, ভালো লেখা হলেই ছাপা হবে। শুধু তাই না বন্ধুদের সাথে বাজী ধরে, একেবারেই অপরিচিত নুতন লেখক হিসেবে তিনি “অতসী মামী” নামে একটি গল্প লেখে সেই সময়কার সবচেয়ে সম্ভ্রান্ত ম্যাগাজিনে ছাপিয়ে ছিলেন’।

কিন্তু, বর্তমান সময়ে মানিক বন্দোপাধ্যায় বা মুহম্মদ জাফর ইকবাল স্যারের মতামতের বাস্তবতা কতটুকু? সেটি প্রমাণ করতে আমার কয়েক বন্ধু আমার সাথে বাজি ধরেন। তাঁদের মতে, আমি তাঁদের যে কোন একজনের লেখা আমার লেখা বলে পাঠালেই সেটা ছাপা হবে। সেই বাজিতে রাজি হয়ে আমি তাঁদের পছন্দের একটি লেখা পাঠালেও যখন লেখাটি ছাপা হয়নি, তখন তাঁরা আমাকে লেখাটির খোঁজ-খবর নিতে বলেন। যদিও আমি কখনোই আমার কোন লেখার খোঁজ নেইনি, প্রথমবারের মতে সেই লেখার খোঁজ নিলে প্রথম আলো উত্তর আমেরিকার আবাসিক সম্পাদক জনাব ইব্রাহীম চৌধুরী বলেন, লেখাগুলো প্রকাশ হবে কি না তা সাধারণত আহমদ আজহার সাহেব দেখভাল করেন। সে যাই হোক, ঐ লেখা আর কখনো ছাপা হয়নি। সেবার তাঁরা আমার সাথে বাজিতে হেরে গেলে বলেন, ‘জনপ্রিয় লেখক আনিসুল হক বা মুহম্মদ জাফর ইকবাল স্যার এই লেখা পাঠালে সেটা ছাপা হতো’। আমি বললাম, ‘হয়তো হতো। তবে, তাঁরা আর Anisul Hoque বা Muhammed Zafar Iqbal থাকতেন না’।

বিষয়টা উল্টো দিকেও সম্পূর্ণ সমান সত্য। আমার সেই বন্ধুদের মধ্যে একজন দুর্গা পূজা উপলক্ষ্যে আমার একটি লেখা কলকাতায় দুর্গা পূজা উপলক্ষ্যে প্রকাশিত একটি ম্যাগাজিনে পাঠালে তাঁরা তা প্রকাশ করেন। তখন আমার বন্ধু সেই লেখা যে আমার সেটা খুলে বলেন। সুতরাং তাঁদের বিশ্বাস হয় যে লেখা ভালো হলে সেটা ছাপা হবে।

কাজেই, আমার মতে, লেখালেখি শুরু করতে হলে, এ রকম অভিযোগ থাকলে তা মন থেকে মুছে ফেলতে হবে। আত্মসমালোচক হয়ে কেন নিজের লেখা ছাপা হলো না তা নিয়ে ভাবতে হবে এবং কীভাবে সেটাকে আরও ভালো করা যায় তার চেষ্টা করতে হবে। প্রকৃতপক্ষে, পত্রিকার সম্পাদকরা সব সময়ই ভালো লেখা খোঁজেন। প্রথম আলো উত্তর আমেরিকার আবাসিক সম্পাদক জনাব ইব্রাহীম চৌধুরী বলেন, তিনি অনেক অনেক লেখা পান। তবে অনেক লেখা লেখার মূল বিষয়কে ফোকাস করে না এবং অনেক লেখা তথ্যসমৃদ্ধ না হওয়ায় তা প্রকাশ করতে পারেন না। তাই, আমি মনে করি, এই বিষয়ে একটু গুরুত্ব দিলে আপনার লেখা প্রকাশ হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যাবে।

যাঁরা লেখালেখি শুরু করতে গিয়ে ভালো পত্রিকায় লেখা ছাপাতে পারেন না, তাদের কয়েকজনের খোঁজ নিয়ে আমি আশ্চর্যজনকভাবে জানতে পারি তাঁদের সেই বিষয়ে পড়াশোনা খুবই কম। প্রতিষ্ঠিত লেখকদের কথা না হয় বাদ দিলাম। আমি নিজে যে কোন বিষয়ে একটি ছোট্ট নিবন্ধ লিখতে বসলে আগে নিশ্চিত হয়ে নিই সেই বিষয়ে আমি অন্তত দুটি বই বা কয়েকটি কলাম/নিবন্ধ পড়েছি কি না। যদিও আপনি আপনার নিজের মতো করে লিখবেন, তবুও আমার মতে, আপনি কতটুকু ভালো লিখবেন সেটা সরাসরি নির্ভর করে সে বিষয়ে আপনি কতটুকু পড়েছেন সেটার ওপর। কাজেই, ভালো লিখতে হলে ভালো বই পড়ুন; বেশি করে জ্ঞান অর্জন করুন।

অনেক বই পড়ার পর যখন আপনি লিখতে বসবেন, তখন আমি একটি কথাই বলবো- স্বপ্ন দেখুন। যেমন-তেমন কোন স্বপ্ন নয়, স্বপ্ন হতে হবে আকাশের মতো বিশাল ও সীমাহীন। কারণ আমাদের বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের সভাপতি অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ স্যার বলেন, ‘মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়’। স্বপ্ন দেখলে যে তা বাস্তব হয় তার প্রমাণ দিতে আমি বাহিরে যাবো কেন? আমি নিজেই স্বপ্ন দেখতাম আমি একটা ভালো পত্রিকায় লেখবো। আজ ২০১৯ সালের ২৭শে সেপ্টেম্বর দুবাইয়ে বসে যখন এই লেখাটা লিখছি, তখন মনে পড়ছে ২০১৮ সালের একই তারিখে আমি ‘ঠাট্টা-তিরস্কারে জবাব যেভাবে দেবেন’ শিরোনামে আমার প্রথম লেখা ‘প্রথম আলো’কে পাঠাই। ০৫ অক্টোবর ২০১৮ সালে সেই লেখা প্রকাশিত হয়। এই একটি বছর প্রতি সপ্তাহে আমি একটি করে লেখা লিখেছি। যাঁরা লেখালেখি করেন তাঁরা ভালোভাবেই জানেন প্রতি সপ্তাহে একটি করে কলাম/নিবন্ধ লেখা কতটুকু সহজ। কাজেই, আমি জানতে চাই, যদিও আমি আমার নিজের লেখা কখনো ছাপা কাগজে পড়ার সৌভাগ্য হয়নি, আমি কি আমার স্বপ্নের সমান অর্জন করতে পারিনি?

এখন তথ্য-প্রযুক্তির যুগ, ফেসবুকের যুগ, ব্লগের যুগ। কোন ভালো পত্রিকা আপনার লেখা না ছাপালে আপনি ফেসবুকে বা ব্লগে লিখতে পারেন। আপনার লেখা পাঠকের পছন্দ হলে পাঠকের পছন্দেই আপনার লেখা ভালো পত্রিকায় ছাপা হবে। তাছাড়া, লেখক-প্রকাশকের সব সময়ই দৃষ্টি থাকে ভালো লেখায়। আপনি ভালো লিখলে তাঁরাই আপনাকে লিখতে উৎসাহিত করবেন, সাহায্য করবেন। সূর্য উঠলে যেমন সূর্য নিজে নিজেই ঢোল পিটিয়ে সবাইকে বলে না আমি উঠেছি, বরং মানুষ তার আলো দেখলেই বুঝতে পারে, ঠিক তেমনি আপনার লেখার মান ভালো হলে, ভালো মানের সেই লেখাটি নিজে নিজেই তার স্থান দখল করে নেবে।

আবার, ভালো পত্রিকায় লেখা প্রকাশের জন্য আপনার লেখা যে প্রথম দিনই সম্পূর্ণ শুদ্ধ বানানে, সঠিক শব্দ চয়নে পুরোটাই ভাষারীতি মেনে চলতে হবে, তা কিন্তু নয়। কথায় আছে, লিখতে লিখতে লেখক। কাজেই আপনি ভয় না পেয়ে লিখতে শুরু করুন। আপনার লেখা যৌক্তিক, তথ্যসমৃদ্ধ ও সুন্দর হলে পত্রিকা অফিস বা সম্পাদকও অনেক কিছু ঠিকঠাক করে দেবেন। আমি যখন প্রথম লেখালেখি শুরু করি তখন আমার মা জ্যোৎস্না চক্রবর্তী  (Jyotsna ছাক্রাবরত্য) আমার লেখার প্রতিটা বাক্যে ২-৩টি বানান শুদ্ধ করে দিতেন। এ বিষয়ে আমার শ্রদ্ধেয় শিক্ষক নিয়াজ উদ্দিন স্যারের পরামর্শ নিলে তিনি বলেন, লিখতে লিখতেই বানান শুদ্ধ হবে। তবে, লক্ষ্য রাখতে হবে, দিন দিন যেন তার উন্নতি হয়।

আর, আপনি যদি নতুন লেখালেখি শুরু করেন তবে একটি লেখা লিখে শেষ করার পর পত্রিকা অফিসে পাঠানোর আগে ভাবুন- এত প্রতিষ্ঠিত লেখক থাকতে সেই পত্রিকা কেন এই বিষয়ে আপনার লেখা প্রকাশ করবে। আপনার লেখাতে যদি এই প্রশ্নের উত্তর না থাকে তবে সম্ভবত এই লেখা প্রকাশিত হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। সেক্ষেত্রে এ সম্পর্কিত আরও বই ও লেখা পড়ে আপনার লেখা সেসব প্রতিষ্ঠিত লেখকের লেখা থেকেও ভালো করার চেষ্টা করুন।

পরিশেষে, ভালো লেখার জন্য আমি শতভাগ ধ্রুব সত্য একটি কথা লিখে এ লেখা শেষ করতে চাই। তা হলো- আপনার লেখা কোন ভালো পত্রিকায় ছাপানোর জন্য সেই পত্রিকার সাথে সম্পর্কযুক্ত কারও কাছে ব্যক্তিগতভাবে অনুরোধ করবেন না। কাউকে দিয়ে আপনার লেখা পাঠাবেন না। তা হলে, আপনার লেখা সৌভাগ্যক্রমে একটি ভালো পত্রিকায় ছাপা হলেও সেটার মান ভালো হবে না। তাই, মনে রাখবেন, আপনার লেখার মান ভালো হলে সেটা নিজে নিজেই তার স্থান দখল করে নেবে, কোন অনুরোধের প্রয়োজন হবে না।

তন্ময় ভট্টাচার্য: কলামিস্ট। গর্বিত বাংলাদেশী। tonmay@lekhashare.com

 

Developed by :