Sunday, 9 August, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |




ফাঁসির আসামির মাথায় আইএসের টুপি : তদন্ত কমিটি গঠন

ঢাকা: রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিসান রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলার মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সাত আসামির মধ্যে দুজনের মাথায় আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আইএসের (ইসলামিক স্টেট) প্রতীক সম্বলিত কালো টুপির বিষয়ে তদন্ত করবে কারা কর্তৃপক্ষ। এজন্য তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কারা মহাপরিদর্শক (আইজি, প্রিজনস) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম মোস্তফা কামাল পাশা।

বুধবার বিকেলে তিনি বলেন, আসামিদের মাথায় আইএসের টুপির বিষয়টি গণমাধ্যমে দেখেছি। এ বিষয়ে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের সব কারাগারে নিরাপত্তা জোরদারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গুলশানে হলি আর্টিসান রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলার মামলায় আট আসামির মধ্যে সাতজনের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। বাকি একজন মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান খালাস পেয়েছেন। বুধবার ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মজিবুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

মামলার রায় ঘোষণার পর সব ছাপিয়ে আলোচনায় উঠে আসে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি রাকিবুল ইসলাম ওরফে রিগ্যানের মাথায় আইএসের টুপির বিষয়টি। কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে রাকিবুল ও জাহাঙ্গীর হোসেন ওরফে রাজীব গান্ধীর মাথায় আইএসের টুপি কীভাবে এলো- এমন প্রশ্নে মন্ত্রী, রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরাও তদন্তের কথা বলছেন।

এ ব্যাপারে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের (কেরানীগঞ্জ) জেলার মাহবুবুল ইসলাম বলেন, আট আসামিকে আমরা আদালতে পাঠানোর উদ্দেশ্যে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করি। এদের মধ্যে একজনের কাছে সাদা টুপি ছিল। আইএসের টুপির বিষয়ে যে প্রশ্ন উঠেছে, সেই প্রশ্ন আমাদেরও- টুপিটা এলো কোথা থেকে?

তিনি আরও বলেন, আদালতের রায়ের পরও আমরা তাদের রিসিভ করেছি। চেক করে তাদের কারাগারের ভেতরে প্রবেশ করানো হয়েছে, কিন্তু তখনও এমন টুপি পাওয়া যায়নি।

 




Developed by :