Monday, 18 November, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




বালাগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত

অনুপ্রবেশকারীদের স্থান আ’লীগে হবে না : আহমদ হোসেন।। টাকা দিয়ে নেতা হওয়ার দিন শেষ : মিসবাহ সিরাজ

বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত থেকে অনুপ্রবেশকারি সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, মাদকসেবী ও মাদক ব্যবসায়ীদের স্থান হবে না আওয়ামী লীগে। ৮টি বিভাগের এসব সন্ত্রাসীদের তালিকা আমাদের হাতে রয়েছে, এরা কোনো ভাবেই দলে ঢুকতে পারবে না। তিনি বলেন, যারা বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনাকে মনেপ্রাণে ভালোবেসে আ’লীগ করে সেসব ত্যাগী নেতা-কর্মীদের এবার কমিটিতে মূল্যায়ন করা হবে।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে বালাগঞ্জ উপজেলা সদরের এমএ খান অডিটোরিয়ামে আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

আহমদ হোসেন আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে রয়েছে। সরকারের উন্নয়ন কর্মকা- সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।

বালাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাকুর রহমান মফুরের সভাপতিত্বে ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আনহার মিয়ার পরিচালনায় সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, কেন্দ্রীয় সদস্য ও সিলেট মহানগরের সভাপতি সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান।

এডভোকেট মিসবাহ সিরাজ বলেন, আওয়ামী লীগের নাম ভাঙ্গিয়ে যারা দেশ-বিদেশে অঢেল সম্পদ বানিয়েছেন তাদের নাম দলীয় সভানেত্রীর কালো তালিকায় রয়েছে। এজন্য দলে অন্তকোন্দল সৃষ্টি করে যারা টাকা দিয়ে নেতা হতে চেয়েছিলেন তাদের আশা আর কখনো পূরণ হবে না।

তিনি বলেন, যারা খাঁটি শেখ হাসিনা প্রেমিক তাদেরকে দিয়েই আওয়ামী লীগকে ঢেলে সাজানো হবে।

সাবেক মেয়র কামরান বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে সিলেট অঞ্চলে আশানুরূপ উন্নয়ন হয়েছে। আমাদের সার্বিক উন্নয়ন নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আন্তরিক রয়েছেন। এজন্য তিনি সকল মতানৈক্য ভুলে দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান।

বহুকাক্সিক্ষত এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এডভোকেট লুৎফুর রহমান, প্রধান বক্তা ছিলেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলহাজ্ব মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এমপি, জেলা সহ সভাপতি মাসুক উদ্দিন আহমদ, এডভোকেট শাহ ফরিদ আহমদ, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মো. নাসির উদ্দিন খান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক এমাদ উদ্দিন মানিক, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালিক, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নিজাম উদ্দিন, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক এডভোকেট রনজিত সরকার, উপ-দপ্তর সম্পাদক জগলু চৌধুরী, সদস্য আবদাল মিয়া, বালাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শওকত আহমদ, ওসমানীনগর আওয়ামী লীগের নেতা গোলাম কিবরিয়া চেয়ারম্যান, বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সাধারণ সম্পাদক সেবুল মিয়া, সিলেট জেলা যুবলীগের সভাপতি শামীম আহমদ, সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদ, শেফিল্ড আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব মতিউর রহমান শাহীন, যুক্তরাজ্য প্রবাসী বালাগঞ্জ ওসমানী নগর উপজেলা আদর্শ সমিতির সভাপতি মসিউর রহমান মসনু, প্রবাসী কমিউনিটি নেতা সাদ উদ্দিন, স্পেন প্রবাসী আবুল কালাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স¦াগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এমএ মতিন।

কাউন্সিল অধিবেশনে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট লুৎফুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে চলমান কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়।

পরে প্রতিদ্বন্দ্বি কোন প্রার্থী না থাকায় বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মফুর সভাপতি ও বোয়ালজুড় ইউপি চেয়ারম্যান মো. আনহার মিয়া সাধারণ সম্পাদক পুনঃনির্বাচিত হয়েছেন।

এদিকে, বালাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অংগ সংগঠনের অসংখ্য নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সম্মেলনের কার্যক্রম শুরু হয়। এ সময় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন বোয়ালজুড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কারী রুহেল আহমদ চৌধুরী, গীতাপাঠ করেন পূর্ব গৌরীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান হিমাংশু রঞ্জন দাস।

এছাড়া, সম্মেলনের শুরুতে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হলে শোক প্রস্তাব পাঠ করেন দলের সাধারণ সম্পাদক মো. আনহার মিয়া।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ ২০০৩ সালে বালাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। দীর্ঘ ১৬ বছর পর অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনকে ঘিরে গত কয়েকদিন বালাগঞ্জের আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে আনন্দ উচ্ছ্বাস বিরাজমান ছিল।

 

Developed by :