Tuesday, 22 October, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৭ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




যুবককে মল-মূত্র খাওয়ানো প্রধান অভিযুক্ত মাহবুব গ্রেফতার

গ্রেফতারকৃত প্রধান অভিযুক্ত আ’লীগ নেতা হাবিবুর রহমান সিকদার

বরিশাল: বরিশালের হিজলায় যুবককে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের পর মুখে মল-মূত্র ঢেলে দেয়ার ঘটনার প্রধান অভিযুক্ত আওয়ামী লীগের কথিত নেতা মো. হাবিবুর রহমান সিকদারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তিনি স্থানীয় আব্দুল খালেক সিকদারের ছেলে ও হরিনাথপুর লঞ্চঘাটের সুপারভাইজার।

মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) দুপুর পৌনে ৩টার দিকে হিজলা উপজেলার হরিনাথপুরের মেমানিয়া স্কুল-সংলগ্ন হিজলতলা থেকে তাকে গ্রেফতার করেন শাওড়া সৈয়দখালী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) তারেক আহসান রাসেল।

এ নিয়ে যুবককে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন ও টয়লেটের মল-মূত্র খাওয়ানোর ঘটনায় গ্রেফতারকৃতের সংখ্যা ৩ জন বলে জানিয়েছেন বরিশাল জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাঈমুল ইসলাম।

তিনি জানান, ‘দীর্ঘ চেষ্টার পর ঘটনার মূল হোতা মাহাবুবুর রহমান সিকদারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি আজম বেপারী নামের ওই যুবকের বুকের ওপর পা রেখে মুখে মল-মূত্র ঢেলেছেন।

এছাড়া গ্রেফতার হওয়া অপর দুজনের মধ্যে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা স্থানীয় টুমচর গ্রামের বাসিন্দা শরীফ মাতুব্বরের ছেলে আব্দুর রশিদ মাতুব্বর ঘটনার সময় ওই যুবকের মাথা চেপে ধরেছিলেন। তাছাড়া গ্রেফতারকৃত কবির নামের ব্যক্তি ঘটনার সহযোগী।

গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তাদের মাধ্যমে অন্য অভিযুক্তদের নাম-পরিচয় শনাক্তকরণের পাশাপাশি তাদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সেই সাথে এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার আজম বেপারীর বাবা মহিউদ্দিন বেপারী বাদী হয়ে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহের মঙ্গলবার হিজলার হরিনাথপুর তালতলা জামে মসজিদ রোড নামক স্থানে টুমচরের বাসিন্দা ও তেল ব্যবসায়ী মহিউদ্দিন বেপারীর ছেলে আজম বেপারীকে (২৫) হাত-পা বেঁধে নির্মমভাবে নির্যাতনের পর তার মুখে মল-মূত্র ঢেলে দেয় প্রভাবশালীরা, যা ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ভাইরাল হয়। এ নিয়ে বিভিন্ন অনলাইন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলে নড়েচড়ে বসে জেলা ও হিজলা উপজেলা প্রশাসন। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে সকাল থেকেই হিজলা থানায় ছুটে যান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাঈমুল হোসেন। তার দিকনির্দেশনায় প্রধান অভিযুক্তসহ তিনজনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে থানা ও ফাঁড়ি পুলিশ।

 

Developed by :