Sunday, 20 October, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৫ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




যুবলীগ চেয়ার‌ম্যানের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

ঢাকা: যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীকে দেশ ছেড়ে যেতে মানা করা হয়েছে। এর আগে তার ব্যাংক হিসাব তলব করা হয়। সরকারের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ঢাকা টাইমস।

সূত্রের বরাতে জানানো হয়, ঢাকা মহনগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল হোসেন সম্রাটসহ যুবলীগের একাধিক নেতা গ্রেপ্তার হওয়ার পরপরই যুবলীগ চেয়ারম্যানের দেশত্যাগের ওপর রোববার (৬ অক্টোবর) এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

রাজনীতির নামে দুর্নীতি, চাঁদাবাজি, পেশিশক্তির প্রয়োগসহ যেকোনো ধরনের বিশৃঙ্খলার বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর ধারাবাহিকতায় শুদ্ধি অভিযান চলছে। এতে দীর্ঘদিন ধরে অপকর্ম করে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করা নেতাকর্মীরা আতঙ্কে আছেন।

জানা যায়, দুই বছর আগে থেকেই প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বিতর্কিতদের তালিকা প্রণয়নের কাজ শুরু হয়। দুর্নীতি করলে কেউ যে ছাড় পাবেন না, এমনকি আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় কোনো নেতা, শীর্ষ আমলা, প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, পরিবহন নেতারাও যে অভিযানের বাইরে নেই, তা স্পষ্ট ভাষায় ইতোমধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে এ পর্যন্ত যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে এসেছে অনেক গডফাদারের নাম।

গ্রেপ্তারকৃতরা অনেক আমলা, মন্ত্রী, এমপি, প্রভাবশালী রাজনীতিক এমনকি কিছু ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তার নামও বলেছেন। এমনকি নাম এসেছে প্রভাবশালী অনেক সাংবাদিকের, যারা আওয়ামী লীগের নাম ভাঙিয়ে অবৈধ উপায়ে কাড়ি কাড়ি টাকা উপার্জন করে বিদেশে পাচার করেছেন।

সূত্র জানায়, সাম্প্রতিক শুদ্ধি অভিযানে যেসব রাজনৈতিক নেতাদের যেসব দুর্নীতি, অনৈতিক কর্মকাণ্ডের বিষয় উঠে আসছে সেগুলো নিয়ে সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে যুবলীগ চেয়ারম্যানকে আপাতত দেশ না ছাড়তে বলা হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর সব ধরনের ব্যাংক হিসাব ও লেনদেনের বিবরণী তলব করা হয়। তার ব্যাংক হিসাবের সকল তথ্য আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে পাঠাতে দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে চিঠি দেয়  বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক গোয়েন্দা বিভাগ বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইনটেলিজেন্স ইউনিট। এরপর রোববার তার দেশত্যাগের ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি হলো।

 

Developed by :