Tuesday, 10 December, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




বিদায় প্রিয় বিয়ানীবাজার — মো. মাসুম মিয়া

বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম:   বিদায় প্রিয় বিয়ানীবাজার শিরোনামে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন বিয়ানীবাজার উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. মাসুম মিয়া। এতে তিনি বিয়ানীবাজারে কর্মকালিন সময়ের স্মৃতি রোমন্থন করেছেন। তাঁর এই স্ট্যাটাস পাঠকদের জন্য হুবহূ তুলে ধরা হলো-

“২০১০ সালের গ্রীষ্মের পড়ন্ত বিকেল। সিলেট শহর থেকে দুপুর ২ টায় অজানা অচেনা বিয়ানীবাজারের উদ্দেশ্যে যাত্রা। সিএনজি চালক নামিয়ে দিলেন বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের ফটকের সামনে। উপজেলা পর্যায়ে এমন একটি দৃষ্টিনন্দন কলেজ দেখে মনের মধ্যে এই জনপদকে একটি ব্যতিক্রম অঞ্চল হিসেবে ধারনা জন্ম নেয়।

অচেনা মানুষের সহযোগিতা নিয়ে বিকাল চার ঘটিকায় উপজেলা শিক্ষা অফিসে উপস্থিত হই। তৎকালীন উপজেলা শিক্ষা অফিসার জনাব জিয়াউদ্দিন আহাম্মদ স্যারকে অফিসে না পেয়ে উচ্চমান সহকারী জনাব শমরেস বাবুর কাছ থেকে নম্বর নিয়ে ফোন দেই। ফোন পাওয়ার১০ মিনিট পরেই অফিসে স্যারের উপস্থিতি এবং হাসি মুখে জিজ্ঞেস করলেন ও আপনি এসেছেন। যোগদান পত্র দিয়ে যোগদান করলাম।

সেই দিনটি ছিল ২০১০সালের ১৮ মে। সেই থেকে বিয়ানীবাজারে পথচলা শুরু। প্রথমে সিলেট থেকে এসে যেয়ে অফিস করা। এভাবে ১৫ দিন যাওয়ার পরই উপজেলা ডরমেটরীতে থাকার সুবাদে সন্ধ্যার পর অফিসার্স ক্লাবে নিয়মিত আসা একে একে সকল কর্মকর্তাদের সাথে আন্তরিকতার সম্পর্ক গড়ে উঠা।

দীর্ঘ সাড়ে নয় বছরে বিয়ানীবাজারের শিক্ষক, সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের যে সহযোগিতা ও ভালোবাসা পেয়েছি তা আজীবন স্মৃতির পাতায় অম্লান হয়ে থাকবে।বিশেষ করে বিয়ানীবাজারের কৃতি সন্তান বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জ থেকে নির্বাচিত মাননীয় সাংসদ ও সাবেক শিক্ষামন্ত্রী জনাব নুরুল ইসলাম নাহিদ মহোদয়ের যে ভালোবাসা ও স্নেহ পেয়েছি তা কখনো ভুলার নয়।

বিয়ানীবাজারের প্রাথমিক শিক্ষা একটি অনন্য উচ্চতায় গিয়ে অবস্থান করুক এ লক্ষেই এখানে কাজ করেছি। বিয়ানীবাজারের শিক্ষক ও বিয়ানীবাজারবাসী আমাকে যে সম্মান ও ভালোবাসা দিয়েছেন তা কখনো ভুলবো না।আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

সুদীর্ঘ সাড়ে নয় বছরের এই পথ চলায় আমার আচরণে কারো মনে কষ্টের কারণ হয়ে থাকলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন এবং আমি ও আমার পরিবারের জন্য দোয়া করবেন যেন সহজ সরল ও সৎ পথে অটুট থেকে জীবনের বাকি সময়টুকু  অতিবাহিত করতে পারি। মহান আল্লাহ যেন সুস্থ রাখেন ও নেক হায়াত দান করেন সকলের কাছে এই প্রত্যাশা থাকল। ধন্যবাদ সকলকে।”

লেখক: সদ্য বিদায়ী সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, বিয়ানীবাজার।

 

Developed by :