Sunday, 20 October, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৫ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




অস্ত্র ও মাদক আইনের মামলায় চার দিনের রিমান্ডে পিযুষ

সিলেট: অস্ত্র ও মাদক আইনে দায়ের করা দুই মামলায় সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি পিযুষ কান্তি দের ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) সকালে সিলেটের অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. মোস্তাইন বিল্লাহ এ রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন। এ সময় তার তিন সহযোগী বাপ্পা পাল, মন্টি রায় ও রায়হান খানকেও দুই মামলায় চার দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়।

এর আগে পুলিশের পক্ষ থেকে অস্ত্র ও মাদক আইনে দায়ের করা দুই মামলায় ৭ দিন করে মোট ১৪ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছিল। তবে উভয় পক্ষের আইনজীবীদের শুনানি শেষে দুইদিন করে মোট চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

প্রসঙ্গত, ১১ সেপ্টেম্বর বুধবার বুধবার রাত সাড়ে ৭ টার মির্জাজাঙ্গাল এলাকার পিযুষের আস্তানা ঘেরাও করে তাদের আটক করা হয়। পরদিন বৃহস্পতিবার একটি বিদেশি রিভলবার, ২ রাউন্ড গুলি ও ৫ হাজার ৫৪০ পিস ইয়াবাসহ আটক পিযুষ কান্তি দে এবং তার তিন সহযোগী বাপ্পা পাল, মন্টি রায় ও রায়হান খানকেকে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালী থানায় হস্তান্তর করা হয়। আর এ ঘটনায় দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরমধ্যে অস্ত্র আইনে একটি ও মাদকদ্রব্য আইনে আরেকটি মামলা করা হয়।

সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক পিযুষ কান্তি দে’র বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি, মারধরসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। নগরীর জিন্দাবাজার-লামাবাজার সড়কের মির্জাজাঙ্গালে আস্তানা গড়ে তুলে নিজের কর্মীবাহিনীর মাধ্যমে এসব অপকর্ম করে বলে অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

এর আগে চলতি বছরের ২২ জানুয়ারি আরো একবার পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক পিযুষ কান্তি দে।

এরপর ছাড়া পেয়ে ফের নানা কর্মকাণ্ডে নগরজুড়ে আলোচিত ছিলেন তিনি। এছাড়া সম্প্রতি নগরীর জিন্দাবাজারে তিন প্রবাসীকে মারধরের ঘটনাতেও তাকে নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। অবশেষে বুধবার ফের র‍্যাবের হাতে আটক হন আওয়ামী রাজনীতির বিতর্কিত এই নেতা।

 

Developed by :