Saturday, 1 October, 2022 খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |




রেলগেইটে সিএনজি শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষ : আহত ৯

সিলেট: দক্ষিণ সুরমার মার্কাজ পয়েন্টে সিএনজি শ্রমিকদের মধ্যে দাওয়া-পাল্টা দাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৬টায় সংঘর্ষে এক পাথচারীসহ ৯ জন আহত হন। আহতরা হলেন, মার্কাজ পয়েন্ট সিএনজি স্ট্যান্ড এর ড্রাউভার লালন (৩০), আক্তার মিয়া (৩২) পথচারী সাগর (১৪) ও স্ট্যান্ডের আরও এক ড্রাউভার। চন্ডিপুল স্ট্যান্ডের ড্রাউভার নাঈম (২২), সেলিম (৩৫), রাহিম (১৮), রুবেল (৩০)

ও রফিক (২৫)।

আহত ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, শনিবার বিকেলে জিতু মিয়ার পয়েন্টে সিএসজি অটোরিকশায় যাত্রী উঠানো নিয়ে চন্ডিপুল স্ট্যান্ডের সিএনজির এক ড্রাউভারের সাথে মার্কাজ পয়েন্ট সিএনজি স্ট্যান্ড এর ড্রাউভার আক্তারের কথা কাটাকাটি হয়।

তার জেরে সন্ধ্যা ৬টায় উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ উভয় পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করতে লাঠি পেটা করে। সে সময় কিছু সময়ের জন্য মার্কাজ পয়েন্টে যান চলাচল বন্ধ থাকে। অনেক ব্যবসায়ী আতঙ্কে দোকানপাট বন্ধ করে দেন। সংঘর্ষে মার্কাজ পয়েন্ট সিএনজি স্ট্যান্ডে দুটি সিএনজি (সিলেট-থ ১১-৩৮০৮, সিলেট-থ ১২-১২৮৫) ভাংচুর করা হয়।

মার্কাজ পয়েন্ট সিএনজি স্ট্যান্ডের সভাপতি কিনু মিয়া বলেন, শনিবার বিকেলে সৃষ্ট ঘটনার পরই উভয় স্ট্যান্ডের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক সহ কয়েকজন বসে বিষয়টি শেষ করে দেয়ার কথা হয় ও উভয় পক্ষকে সংঘাতে না জড়াতে সতর্ক করা হয়। তারপরও চন্ডিপুল স্ট্যান্ডেরর লোকজন আমাদের স্ট্যান্ডে এসে হামলা চালায় ও গাড়ি ভাংচুর করে।

চন্ডিপুল স্ট্যান্ডের সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন বলেন, আমাদের ড্রাউভার ৫ জন আহত হয়েছেন। তাদের চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, চন্ডিপুল স্ট্যান্ডের ড্রাউভাররা যখন মার্কাজ পয়েন্ট স্ট্যান্ডের সামন দিয়ে যায় তখন তারা সিএসজি থামিয়ে চাঁদা দিতে বলে। এ বিষয়ে পূর্বে কয়েকবার ঝামেলা হয়।

এ বিষয়ে কথা হয় দক্ষিণ সুরমা থানার অফিসার ইনচার্জ খায়রুল ফজলের সাথে। তিনি বলে, রাত ১০ পর্যন্ত কোনো পক্ষ থানায় অভিযোগ নিয়ে আসেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

Developed by :