Monday, 23 September, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




ব্রেক্সিট: হেরে গেলেন প্রধানমন্ত্রী বরিস, পার্লামেন্ট এখন এমপিদের নিয়ন্ত্রণে

আলী আহমেদ বেবুল, লন্ডন:   প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পার্লামেন্ট অধিবেশনে এসেই পরাজয়ের মুখোমুখি হলেন বরিস জনসন।

মঙ্গলবার ব্রেক্সিট ইস্যুতে পার্লামেন্ট সরকার না এমপিদের নিয়ন্ত্রণ থাকবে এমন একটি ভোটাভোটিতে ২৭ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন তিনি। পার্লামেন্টে এমপিদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার পক্ষে ভোট দেন মোট ৩শ ২৮জন এমপি এবং সরকারের পক্ষে ভোট দেন ৩শ ১জন।

এই ভোটাভোটিতে সাবেক মন্ত্রীসহ সরকারী দল টোরি পার্টির ২১জন বিদ্রোহী এমপি ও বিরোধী দলীয় এমপিরা ব্রেক্সিট সময়সীমা বৃদ্ধি করে চুক্তিহীন ব্রেক্সিট প্রতিরোধে একটি আইন প্রণয়নের প্রাথমিক পর্যায়ে বরিস নেতৃত্বাধীন সরকারকে পরাজিত করলেন।

ভোটাভোটিতে বিজয়ী এমপিরা এখন বুধবার চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের বিরুদ্ধে নতুন একটি বিল উত্তাপন করবেন যা খুব সহজেই পার্লামেন্টে গৃহিত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

৩১ অক্টোবরের নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই ব্রেক্সিট বাস্তবায়নে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ প্রধানমন্ত্রী জনসন আগে হুমকি দিয়ে রেখেছিলেন যে, নির্ধারিত সময়ে ব্রেক্সিট বাধাগ্রস্থ হলে নতুন নির্বাচনের দিকেই এগুতে হবে তাঁকে। এক্ষেত্রে ১৪ই অক্টোবর হতে পারে এই মধ্যবর্তী নির্বাচন। বিরোধী দলীয় নেতা জেরিমি করভিন অবশ্য বলেছেন চুক্তিহীন ব্রেক্সিট প্রতিরোধে পার্লামেন্টে উত্তাপিত বিল পাসের পরই হতে পারে এ নির্বাচন।

মঙ্গলবারের ভোটাভোটির আগে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন নিজ দলের এমপিদের এই মর্মে সতর্ক করেছিলেন যে, সরকারের বিরুদ্ধে কেউ ভোট দিলে তাকে বহিস্কার করা হবে। কিন্ত তাঁর এই সতর্কবার্তা উপেক্ষা করেই সাবেক চ্যান্সেলার কেনেথ ক্লার্কসহ ২১জন টোরি এমপি বুধবারের ভোটাভোটিতে সরকারের বিরুদ্ধে ভোট দেন।

উল্লেখ্য, ব্রিটিশ পার্লামেন্টে আলোচনার এজেন্ডা সাধারণত সরকারই ঠিক করে থাকে। প্রধানমন্ত্রী জনসন এই সুযোগই নিতে চাচ্ছিলেন। পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট ইস্যুতে কোন আলোচনা না করেই নির্ধারিত সময়ে চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের পথে হাটছিলেন তিনি। কিন্তু মঙ্গলবারের ভোটাভোটিতে হেরে যাওয়ায় পার্লামেন্টের এজেন্ডা এখন ঠিক করবেন সরকার নয়, এমপিরা। ফলে চুক্তিহীন ব্রেক্সিট ইস্যুই এখন হবে বুধবারের পার্লামেন্ট অধিবেশনে মূল আলোচ্য বিষয়। এই বিষয়ে ব্রেক্সিট সময়সীমা বৃদ্ধি করে চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের বিপক্ষেই অবস্থান নেবে পার্লামেন্ট, এমনটাই ধারণা করা হচ্ছে।

 





Developed by :