Thursday, 6 October, 2022 খ্রীষ্টাব্দ | ২১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |




বিয়ানীবাজারে স্কুুলছাত্রী পাশবিকতার শিকার ॥ ধর্ষক আটকে তৎপর পুলিশ

বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম: মৌসুমিদের (ছদ্দনাম) বাড়ি কুশিয়ারা নদী ভেঙ্গে নিয়েছে। পিতা আশ্রিত হয়েছেন কুড়ারবাজার ইউনিয়নের পালকোনা গ্রামে। পরিবারের সাথে বড় হচ্ছে স্কুল পড়ুয়া শিশু মৌসুমি (১১)। তার ভাগ্যের নির্মম পরিহাস, গত বুধবার দিনের বেলায় বাড়িওয়ালার এক পুত্রসন্তান মৌসুমিকে জোরপূর্বক পাশবিক নির্যাতনের গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। বর্তমানে নির্যাতিত ঐ শিশু সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজের ওসিসিতে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

তবে, এ ঘটনায় শিশুর পরিবার গণমাধ্যম কিংবা প্রশাসনের কাছে রহস্যজনক কারণে মুখ খুলছেন না।

সূত্রমতে, পাশবিক নির্যাতনের পর তার পরিবার সিলেট ওসমানী হাসপাতালের ওসিসি’তে মৌসুমিকে ভর্তি করান। ওসিসি’র দায়িত্বশীল পুলিশ কর্মকর্তা বিষয়টি বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জকে অবহিত করেন। এরপর পুলিশ মৌসুমির পিতার সাথে যোগাযোগ করে থানায় অভিযোগ দিতে অনুরোধ করেন। কিন্তু স্থানীয় প্রভাবশালীদের ভয়ে শিশুর পিতা তিন দিনেও থানায় অভিযোগ দেননি। তবে, পুলিশ লোমহর্ষক এ ঘটনার নায়কের নাম-পরিচয় পেয়েছে।

এ ব্যাপারে কুড়ারবাজার ইউপি চেয়ারম্যান এএফএম আবু তাহের বলেন, লোকমুখে পাশবিকতার একটি ঘটনা শুনেছি। তবে বিস্তারিত তথ্য আমার কাছে নেই।

বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ অবনী শংকর কর বলেন, ঘটনা তদন্তে থানা পুলিশের এসআই কামরুল ঘটনাস্থল এবং সিলেট হাসপাতালে গিয়েছে। তিনি বলেন, অভিযোগ দায়েরে শিশুর পিতার অনিহা রয়েছে। তিনি বলেন, এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিকে আটক করতে পুলিশের দু’টি টিম কাজ করছে। সফল হলে গণমাধ্যমের কাছে বিস্তারিত জানানো হবে।

এদিকে, মৌসুমির ভাইপো অটোরিক্সাচালক নাঈমকে (১৫) সিলেটের বালুচরে হত্যা করা হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় তার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পিতামাতার সাথে নাঈম বালুচরে বসবাস করতো।

 

Developed by :