Thursday, 29 September, 2022 খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |




সিলেটে ১০ বছর ধরে স্বাস্থ্যসেবায় কাজ করছে লন্ডনের ‘সেলফ লেস’

ছাদেক আহমদ আজাদ 

একজন মধ্য বয়সী নারী দু’বছরের ফুটফুটে শিশু সন্তানকে কোলে নিয়ে রোদের মধ্যে দাঁড়িয়ে আছেন। তার সামনে পেছনে দীর্ঘ লাইন। তবুও যেন ক্লান্তির রেখা চোখে-মুখে নেই। কারণ জিজ্ঞেস করলেই চটপট উত্তর, ‘ইনো বিদেশ তাকি ডাক্তার আইছন। আমার অউ পুড়ির চোখ দেখাইতাম করি বইতাকছি।’ এভাবে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত শত শত নারী-পুরুষ লাইনে দাঁড়ানো রয়েছেন। তাদেরও মনে বিদেশী ডাক্তার দেখানোর বাসনা, আকাঙ্ক্ষা ফ্রি ঔষধের।

লন্ডনের ‘সেলফ লেস’ নামক একটি চ্যারিটি সংগঠন গতকাল দুবাগ আইডিয়াল একাডেমিতে ফ্রি চিকিৎসাসেবার আয়োজন করে। খবর পেয়ে রোগাক্রান্ত বিপুলসংখ্যক রোগী জড়ো হয়েছিলেন সেখানে।

এক ঘন্টা অপেক্ষার পর যে বিদেশী ডাক্তার শিশু রোকশানাকে দেখলেন তাঁর নাম ফারজানা ইসলাম। বাংলায় কথা বলছেন দেখে শিশুর মা আকলিমা বেগমের মৃদু কণ্ঠে উক্তি ‘তাইন অ-নি বিদেশি ডাক্তার’। তবে ডা. ফারাজানা যেভাবে শিশুর পরিচর্যা করেছেন তাতে সন্তুষ্টির কথা জানালেন আকলিমা বেগম। তাকে ফ্রি ঔষধ নিয়ে বাড়ির দিকে রওয়ানা হতে দেখা গেছে।

ডা. ফারজানা লন্ডনের একটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইএনটি রোগের উপর গ্র্যাজুয়েশন করেছেন। সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে মৃদু হেসে বললেন, ‘আমার জন্ম-পড়ালেখা লন্ডনে হলেও আমি বিদেশী ডাক্তার নই। বিয়ানীবাজারের আকাখাজানা (বড়বাড়ি) গ্রামে আমার বাড়ি। আমার বাবা-চাচা, দাদা সবাই লন্ডনে বসবাস করেন। ডা. ফারজানা গত কয়েক বছর থেকে পিতৃভূমির মানুষের পাশে দাঁড়াতে সিলেটে ছুটে আসেন এবং ফ্রি চিকিৎসাসেবা ক্যাম্পে রোগী দেখেন। এ সময়টা তাঁর খুব ভালো লাগে বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।

গতকাল বুধবার বিয়ানীবাজারে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প সরেজমিন পরিদর্শনকালে লন্ডনের চেলসি এন্ড ওয়েস্টমিনিস্টার হসপিটালের রেডিওলজিস্ট বিভাগের কনসালটেন্ট ডা. নাঈম আহমদ জানান, তিনি মেডিকেলের ছাত্র থাকাবস্থায় ২০০৮ সালে চ্যারিটি সংগঠন ‘সেলফ লেস’ প্রতিষ্ঠা করেন। বাংলাদেশে ২০০৯ সালে প্রথম ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প করেন মৌলভীবাজারে। এরপর থেকে প্রতিবছর ১০-১৫ দিনব্যাপী সিলেটের বিভিন্ন স্থানে অসহায় দুঃস্থ মানুষের পাশে দাঁড়ায় ‘সেলফ লেস’। তিনি জানান, প্রতিবছর প্রায় পাঁচ হাজার রোগীকে ফ্রি ট্রিটমেন্ট ও ঔষধ প্রদান করা হয়। বিশে^র বিভিন্ন দেশের বিশেষজ্ঞ ও শিক্ষানবীশ মিলে ২০-২৫জন চিকিৎসক ‘সেলফ লেস’ এর মাধ্যমে এদেশে এসে চিকিৎসা দিচ্ছে বলেও জানান ডা. নাঈম আহমদ।

এবার ১২দিন ধরে সিলেটে অবস্থান করছে লন্ডনের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘সেলফ লেস’। টিম লিডার রেজওয়ান কামালী জানান, তাদের দলে লন্ডনের তিনজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকসহ রয়েছেন সুইডেন, নরওয়ে, নাইজেরিয়া, সুমালিয়া, আয়ারল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মেডিসিন, সার্জারি, নাক-কান-গলা, দাঁত, চোখ ও শিশুরোগের ৩২জন চিকিৎসক। এছাড়া সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালের ১০জন চিকিৎসক নিয়মিত তাদেরকে সহযোগিতা করছেন।

এ দেশে অবস্থানকালে বিয়ানীবাজার উপজেলার আলীনগর ও দুবাগ ইউনিয়ন এবং ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প করেছে ‘সেলফ লেস’। এ সময়ে তাঁরা স্থানীয় মানুষের আন্তরিক সহযোগিতা পেয়ে খুবই আনন্দিত বলে জানিয়েছেন প্রতিনিধি দলের সদস্য সুইডেনের নাগরিক শিক্ষানবীশ ডা. এভা। আগামীতেও সুযোগ পেলে নান্দনিক সৌন্দর্য্যে ভরপুর সিলেটে আসার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক শিক্ষানবীশ ডা. মাটিলভা।

‘সেলফ লেস’ এর ডিরেক্টর ডা. জাহাঙ্গীর আলম জানান, আমরা এ সংগঠনের অধীনে আরো দু’টি প্রজেক্ট শুরু করেছি। একটি ‘উপহার প্রোগ্রাম’ অন্যটি ‘বাংলা আই প্রজেক্ট’। এবার উপহার প্রোগ্রামের মাধমে এক হাজার প্রসূতি মা ও তাদের সন্তানদের বস্ত্রসহ বিভিন্ন সামগ্রী প্রদান করেছি। এছাড়া ‘বাংলা আই প্রজেক্ট’র জন্য একটি মোটর সাইকেল ক্রয় করা হয়েছে। ঐ সাইকেল দিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রথমে চোখের রোগী সনাক্ত করা হবে। তারপর পর্যায়ক্রমে সিলেটে এনে ফ্রি চিকিৎসা প্রদান করা হবে। তিনি আরো জানান, সিলেটে এ প্রজেক্ট তদারকি করছেন ডা. আহমেদ শাহরিয়ার। এজন্য ডা. জাহাঙ্গীর সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

এদিকে গতকাল বুধবার বিয়ানীবাজার উপজেলার দুবাগ আইডিয়াল একাডেমিতে সহস্রাধিক অসহায় দুস্থ রোগীদের ফ্রি চিকিৎসাসেবা ও ঔষধ প্রদান করা হয়েছে।

সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ডা. নাঈম আহমদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাসেবা প্রদান করেন লন্ডনের বিশেষজ্ঞ ডা. ফারজানা ইসলাম ও ডা. জাহাঙ্গীর আলমসহ সুইডেন, নরওয়ে, নাইজেরিয়া, সুমালিয়া, আয়ারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ ও লন্ডনের মেডিসিন, সার্জারি, নাক-কান-গলা, দাঁত, চোখ ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ও শিক্ষানবীশ ৩২জন চিকিৎসক।

এরমধ্যে এমএজি ওসমানী মেডকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন, গাইনী ও সার্জারি বিভাগের চিকিৎসকরা হলেন, ডা. নাজমুস শাকিব, ডা. মাহবুবুল আলম হৃদয়, ডা. আরাফাতুর রহমান, ডা. রায়হান তালুকদার, ডা. তমালিকা ঘোষ, ডা. মাসিয়াত মৌরিন, ডা. সালমা আক্তার লিজা, ডা. শফিকুর রহমান, ডা. হরষিদ বিশ্বাস ও ডা. ইব্রাহিম আলী। এদিকে দেশ-বিদেশ থেকে আগত চিকিৎসক দল স্কুল প্রাঙ্গণে এসে পৌঁছলে তাদেরকে অভ্যর্থনা জানান ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক আব্দুর রাজ্জাক, স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুর রায়হান, সদস্য শিব্বির আহমদ সুলেমান, রুহেল আহমদ চৌধুরী ও আব্দুল গণি।

 

Developed by :