Monday, 15 July, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৩১ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




ঢাকাদক্ষিন ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার পরিবেশ বিপর্যস্ত, নেপথ্যে কারা?

গোলাপগঞ্জ: সিলেটর গোলাপগঞ্জের ঢাকাদক্ষিণ সরকারি ডিগ্রি কলেজের কিছুসংখ্যক বেপরোয়া ছাত্রদের উচ্ছৃঙ্খলতায় শিক্ষার স্বাভাবিক পরিবেশ বিঘ্ন ঘটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব উচ্ছৃঙ্খল ছাত্ররা শিক্ষার্থীদের ভর্তি, টিউশন, পরীক্ষার ফির টাকা জোরপূর্বক হাতিয়ে নিচ্ছে বলে জানা গেছে। গত উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কলেজ পরিচালনা কমিটি ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা একাধিক বৈঠক করেছেন। বেপরোয়া ছাত্রদের উশৃঙ্খল আচরণ শিক্ষক ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের ভীতির কারন হয়ে দাঁড়িয়েছে। এসব শিক্ষার্থীরা একজন নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধির ইন্ধনে লাগামহীন উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। তবে অনেকেই নিরাপত্তার ভয়ে উচ্ছৃঙ্খল ছাত্রদের ইন্ধনদাতার নাম প্রকাশ করতে চান না।

সর্বশেষ এর সমাধান ও বেপরোয়া ছাত্রদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়ে কলেজের শিক্ষকরা অধ্যক্ষ অনুরঞ্জন দাস স্বাক্ষরিত এক পত্রের মাধ্যমে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান  এবং নির্বাহী অফিসার বরাবর অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে কলেজের বতর্মান ও প্রাক্তন ছাত্র তানভির, ফরিদ, মারুফ ও নাসিম কলেজে বিগত ৩-৪  বছর থেকে ছাত্র-ছাত্রীদের ভর্তি, টিউশন, সেশন ফি, ফরমপূরন ফিসহ অধিকাংশ অর্থই জোরপূর্বক হাতিয়ে নিচ্ছে। তারা শিক্ষার্থীদের ভয় দেখিয়ে কলেজে আসার পথেই ফাইলপত্রসহ ফি’র টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিসহ গভর্নিং বডির প্রাক্তন সদস্যদেরকে নিয়ে বার বার প্রতিকারের চেষ্টা করলেও কোন সুরাহা আসেনি। চলতি ডিগ্রি (পাস) তৃতীয় বর্ষের ফরম পূরর্ণের পূর্বে কলেজের প্রাক্তন কয়েকজন গর্ভনিং বডির সদস্যসহ বর্তমান উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক ছাত্রনেতা মনসুর আহমদকে নিয়ে গত ৩০ জুন অভিযুক্তদের নিয়ে সভা করার পরও তাদেরকে থামানো যায়নি। তাদের বেআইনী কাজের বিরুদ্ধে অধ্যক্ষসহ কলেজের শিক্ষক, কর্মচারী বৃন্দ প্রতিবাদ করলে তারা তাদের সাথে অত্যান্ত অশোভন আচরণ করে এবং বিভিন্ন প্রকার হুমকি দেয়া হয়। এতে কলেছের শিক্ষকসহ কর্মচারীবৃন্দ চরম নিরাপত্তাহীনতায় আছেন বলে পত্রে উল্লেখ করেন। অভিযুক্ত ছাত্ররা ডিগ্রি (পাস) ৩য় বর্ষের ফরমপূরণ কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে। ফরমপূরনের কাজ করলে অফিস সহকারিদের হাত ভেঙ্গে দেয়ার হুমকি দিয়েছে এসব উচ্ছৃঙ্খল ছাত্ররা।

আর্থিক সুবিধা প্রদান না করলে ফরমপূরন করতে দেয়া হবেনা বলে কলেজের বিভিন্ন শিক্ষকদের শাসিয়ে যায় এসব ছাত্ররা। ৩য় বর্ষের ফরম পূরনের সর্বশেষ তারিখ আগামী ১৩ জুলাই হওয়ায় এ কলেজের শিক্ষার্থীদের চুড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহন নিয়ে আশংকা দেখা দিয়েছে।

অভিযোগপত্রে শিক্ষক-কর্মচারীদের নিরাপত্তা, যাবতীয় ফি সম্পূর্ণভাবে আদায়ের যথাযথ ব্যবস্থা এবং বেতনভাতা প্রদানসহ প্রায় স্থবির হয়ে যাওয়া শিক্ষা কার্যক্রম সচল করতে প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গোলাপগঞ্জ মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কঅফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান বলেন, ইউএনও মহোদয় অভিযোগপত্রের একটি কপিও আমাকে দিয়েছেন, আমি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিব।

ঢাকাদক্ষিন ডিগ্রি কলেজ অধ্যক্ষ অনুরঞ্জন দাসের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, দীর্ঘদিন থেকে আমরা এ সমস্যায় জর্জরিত। বর্তমানে কলেজের স্বাভাবিক শিক্ষার পরিবেশ একেবারে বিপর্যস্ত। এ বিষয়ে কয়েকবার ইউএনও মহোদয়কে মৌখিকভাবে অবগত করেছি। শেষ পর্যন্ত আমরা ছাত্রদের উচ্ছৃঙ্খলতায় অতিষ্ট হয়ে লিখিত অভিযোগ করেছি।

গোলাপগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরী শিক্ষকদের অভিযোগপত্র পেয়েছেন জানিয়ে বলেন, বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে, আশু সমাধানে আমরা ব্যবস্থা নেব।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার অভিযোগ পত্রের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি সমাধানে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জকে বলে দিয়েছি উনি ব্যবস্থা নেবেন। প্রয়োজনে এ ব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষকে মামলা করতে বলেছি।-সিলেটভিউ

 





সর্বশেষ সংবাদ

Developed by :