Tuesday, 19 November, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




ড. জাফর ইকবাল হত্যাচেষ্টা মামলার আসামি ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার

সিলেট: জনপ্রিয় লেখক অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালকে হত্যাচেষ্টা মামলার চার্জশিটভুক্ত এক আসামিকে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার সন্ধ্যায় জৈন্তাপুর উপজেলার হরিপুর এলাকা থেকে ইয়াবাসহ ৩জনকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। এদের মধ্যে জাফর ইকবাল হত্যা চেষ্টা মামলার চার্জশীটভূক্ত আসামী এনামুল হাসান (২৬) রয়েছেন। এনামুল সিলট সদর উপজেলার টুকেরবাজারের শেখপাড়ার আতিকুর রহমানের ছেলে। জাফর ইকবালকে হত্যাচেষ্টা মামলা তিনি কারাগারে ছিলেন। পরে জামিনে বেরিয়ে আসেন।



গ্রেপ্তারকৃত অপর দু’জন হলেন- সিলেট নগরীর সরষপুরের মৃত আলী হোসেনের ছেলে আনোয়ার আলী মালি (৪৮) ও জালালাবাদ থানাধীন খুররমখলার মৃত শেখ শফিকুর ইসলামের ছেলে শেখ সুমন আহমদ (২৮)।

শনিবার সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) মো. লুৎফুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গ্রেপ্তাররকৃতরা মাদক ব্যবসায়ী। এদের একজন ড. জাফর ইকবালকে হত্যাচেষ্টা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি। তাদের বিরুদ্ধে জৈন্তাপুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।



জৈন্তাপুর থানার ওসি খান মো. মাইনুল জাকির বলেন, মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে শনিবার ওই তিনজনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৩ মার্চ শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ আয়োজিত ‘ইইই ফেস্টিভ্যাল’ চলাকালে মঞ্চে বসে থাকা জাফর ইকবালের ওপর হামলা করে ফয়জুল হাসান নামে এক যুবক।



মাথার পেছন দিকে ও শরীরের কয়েক স্থানে ছুরিকাঘাত করা হয় তাকে। আহত জাফর ইকবালকে প্রথমে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও পরে ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

হামলার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ইশফাকুল হোসেন বাদি হয়ে নগরীর জালালাবাদ থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় ফয়জুল হাসানকে প্রধান আসামি করে আরও কয়েকজনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়।



ঘটনার পরপরই পুলিশ ও শিক্ষার্থীরা হামলাকারী ফয়জুল হাসানকে আটক করেন। গণপিটুনিতে আহত হওয়ার পর তাকে ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। আদালতে হাজির করা হলে তিনি স্বীকারোক্তি দেন। পরে পুলিশ পৃথকভাবে ফয়জুলের বাবা, মা, ভাই, মামা ও বন্ধুকে জাফর ইকবালকে হত্যাচেষ্টা মামলায় গ্রেফতার করে রিমান্ডে নেয়। রিমান্ড শেষে আদালত তাদেরকে কারাগারে পাঠায়।

গেল বছরের ২৬ জুলাই জাফর ইকবালকে হত্যাচেষ্টা মামলায় আদালতে ৩৫৩ পৃষ্ঠার চার্জশিট দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নগরীর জালালাবাদ থানার ওসি শফিকুল ইসলাম। এতে ছয়জনকে অভিযুক্ত করা হয়।



অভিযুক্তরা হলেন- সুনামগঞ্জের দিরাই থানার কালিয়াকাপনের ফয়জুল হাসান ফয়েজ, তার বন্ধু সুনামগঞ্জের দিরাই থানার উমেদনগর গ্রামের সাদেকুর রহমানের ছেলে সোহাগ মিয়া, ফয়জুলের বাবা আতিকুর রহমান, মা মিনারা বেগম, মামা ফজলুর রহমান ও ভাই এনামুল হাসান।

ওই চার্জশিট আমলে নেন আদালত। পরে চলতি বছরের ২১ মার্চ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ কার্যক্রম শুরু হয়।




























 

Developed by :