Tuesday, 19 November, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




ওসমানী হাসপাতাল থেকে ‘হার্ট লান’মেশিনটি ঢাকায় যাচ্ছে না

সিলেট: সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ‘হার্ট লান’ মেশিনটি ঢাকায় যাচ্ছে না। সুতরাং এ নিয়ে আন্দোলন কিংবা লেখালেখির কোন প্রয়োজন নেই।

শনিবার দুপুরে ‘সিলেট উন্নয়ন ও ঐতিহ্যের সংরক্ষণ পরিষদের’ একটি প্রতিনিধি দলের সাথে এক বৈঠকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রেগেডিয়ার জেনারেল মো: ইউনুস রহমান এ কথা বলেন।



তিনি জানান, এই মেশিনটি এ বছরের শুরুতে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এসেছে।

‘ওপেন হার্ট সার্জারি’ করার ক্ষেত্রে ‘হার্ট লান’মেশিনটি ব্যবহার করা হয়। সরকার এটির জন্য ‘কার্ডিয়াক ভাসকুলার সার্জন এবং একটি টিম’ দিয়েছিলো। কার্ডিয়াক ভাসকুলার সার্জন ডা. মাহবুবুর রহমান হঠাৎ হৃদরোগে মারা যান।



তিনি আরো জানান, ১ কোটি ৮২ লাখ টাকা মূল্যের এ যন্ত্রটি ব্যবহারের উপযোগী অবকাঠামোগত সুবিধা ও লোকবল ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেই।

তবে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এই হার্ট লাং মেশিন সহ সর্বাধুনিক অন্যান্য যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ একটি পূর্ণাঙ্গ কার্ডিয়াক সেন্টার স্থাপনের জন্যে খুব শিগগির একটি প্রস্তাব সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হচ্ছে।



সিলেট উন্নয়ন ও ঐতিহ্যের সংরক্ষণ পরিষদের’ এই প্রতিনিধি দলে ছিলেন সংগঠনের আহ্বায়ক ও প্রেসক্লাব ফান্ডেশনের সভাপতি আল-আজাদ, সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহিত চৌধুরী, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সংগঠনের সদস্য সচিব শামসুল আলম সেলিম, বিশিষ্ট কলামিস্ট ও সংগঠনের সদস্য রুহুল কুদ্দুস বাবুল, ফটো সাংবাদিক ও সংগঠনের সদস্য নাজমুল কবির পাবেল।



এছাড়াও ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ, আবাসিক সার্জন ডা অরুণ কুমার বৈষ্ণব, ডা আসাদুজ্জামান জুয়েল, বাংলাদেশ প্রতিদিনের ব্যুরো প্রধান শাহ দিদার আলম নবেল ও বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল আলী সাদেক উপস্থিত ছিলেন।



উল্লেখ্য, ‘হার্ট লান’ মেশিনটি ঢাকায় চলে যাচ্ছে এমন খবরে ‘সিলেট উন্নয়ন ও ঐতিহ্যের সংরক্ষণ পরিষদ’ নড়ে চড়ে ওঠে। তারা ঢাকাসহ সরকারের বিভিন্ন বিভাগের এর সত্যতা যাচাই করতে দৌড়-ঝাপ শুরু করেন।





































 

Developed by :