Friday, 26 November, 2021 খ্রীষ্টাব্দ | ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |




পাক-ভারত মহারণ নিয়ে মুখ খুললেন কোহলি

স্পোর্টস ডেস্ক: বৃষ্টির জন্য নটিংহ্যামারের ম্যাচ বাতিল হয়ে যাওয়ার পরেই বিরাট কোহালির মুখে শোনা গেল রোববারের পাকিস্তান ম্যাচের কথা। ভারত অধিনায়ক বলে দিলেন, ‘পাকিস্তান ম্যাচ আমাদের মধ্যে থেকে সেরাটা বার করে আনে।’

গত কয়েক দিন থেকেই নটিংহ্যামে বৃষ্টি হচ্ছিল। আশঙ্কা ছিল, ভারত-নিউজ়িল্যান্ড ম্যাচেও না বৃষ্টি থাবা বসায়। শেষ পর্যন্ত তাই হল। দফায় দফায় বৃষ্টির জেরে টসও হতে পারল না। কয়েকবার মাঠ পর্যবেক্ষনের পর আম্পায়াররা জানিয়ে দেন, ম্যাচ পরিত্যক্ত। যার জেরে দু’দলই এক পয়েন্ট করে পেল। চার ম্যাচে সাত পয়েন্ট পেয়ে নিউজিল্যান্ড থেকে গেল এক নম্বরে। তিন ম্যাচে পাঁচ পয়েন্ট পাওয়া ভারত এখন তিন নম্বরে।



ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার পরে টিভিতে আসন্ন ভারত-পাক লড়াই নিয়ে কোহালি বলেন, ‘ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ বহু বছর ধরে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতার সাক্ষী থেকে এসেছে। বিশ্ব জুড়ে এই লড়াই নিয়ে আগ্রহ থাকে। এই রকম ম্যাচে খেলার সুযোগ পাওয়াটা একটা সম্মানের ব্যাপার। এই ম্যাচ আমাদের সবার সেরাটা বার করে নিয়ে আসে।’

১৬ জুন, ম্যানচেস্টারে সেই বহু প্রতীক্ষিত ভারত-পাকিস্তান দ্বৈরথ। যে ম্যাচের টিকিট বহু দিন আগেই সব বিক্রি হয়ে গিয়েছে। দু’দলের এই লড়াই নিয়ে টিভিতে শুরু হয়ে গিয়েছে বিজ্ঞাপন-যুদ্ধও।



মাঠের বাইরের যে লড়াইয়ের সমালোচনা করেছেন সানিয়া মির্জার মতো তারকা খেলোয়াড়। কোহালির কথায় পরিষ্কার, ভারতীয় ক্রিকেটারেরা ইতোমধ্যেই মানসিকভাবে পাক ম্যাচের জন্য তৈরি হয়ে গিয়েছেন। ভারত অধিনায়কের মন্তব্য, ‘মানসিকভাবে যে রোববারের ম্যাচের জন্য আমরা তৈরি, সেটা জানি। এ বার কাজটা হবে, মাঠে নেমে পরিকল্পনাগুলো ঠিক মতো কাজে লাগানো।’



গত বিশ্বকাপগুলোর মতো এবারও ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে তুমুল আগ্রহ তৈরি হয়েছে। দু’দলের সমর্থকরা তৈরি হচ্ছে এই মহা ম্যাচের জন্য। কোহালি অবশ্য মাঠের বাইরের এই আঁচ থেকে দূরেই থাকতে চান। তিনি বলেছেন, ‘স্টেডিয়ামে ঢোকার পরে মাঠের পরিবেশ দেখে কেউ কেউ ঘাবড়ে যেতে পারে। বিশেষ করে নবাগতরা। তবে মাঠে নামলেই সব কিছু স্বাভাবিক হয়ে যায়। তখন সবাই শান্ত মনে খেলারটার উপরে মনঃসংযোগ করতে পারে।’’



নিউজিল্যান্ড ম্যাচে টস না হওয়ায় জানা যায়নি, ভারত প্রথম একাদশে কাদের রাখতে চেয়েছিল। প্রশ্ন থাকছে শিখর ধাওয়ানের চোটের অবস্থা নিয়েও। ধাওয়ানের চোট নিয়ে কোহালি বলে যান, ‘সপ্তাহ দুয়েক শিখরের হাতে প্লাস্টার করা থাকবে। তার পরে আমরা দেখব, ওর কী অবস্থা। আশা করব, বিশ্বকাপের পরের দিকে আর সেমিফাইনাল পর্ব থেকে ওকে পাওয়া যাবে। শিখর নিজে প্রচণ্ড উদ্দীপ্ত। আমরা ওকে দলের সঙ্গে রেখে দিতে চাই।’



তবে ধাওয়ান নিয়ে অন্য আর একটা আশঙ্কা আছে টিম ইন্ডিয়ার। সেটি হল, তিনি কোথায় ফিল্ডিং করবেন। ভারতের ফিল্ডিং কোচ আর শ্রীধর এ দিন বলেন, ‘ধাওয়ানের বল ছুড়তে সমস্যা হবে না। কিন্তু ক্যাচ ধরতে সমস্যা হতে পারে। বিশেষ করে ও যখন স্লিপে বেশি সময় ফিল্ডিং করে। আমরা প্রথমে হালকা বল দিয়ে ওকে প্র্যাক্টিস করাব। তার পরে দেখব, ব্যাপারটা কী দাঁড়ায়।’



বৃহস্পতিবারের ভেস্তে যাওয়া ম্যাচ নিয়ে এর পরে কোহালি বলেন, ‘এভাবে ম্যাচ না হওয়ায় আমরা অবশ্যই হতাশ। কিন্তু এটাও দেখতে হবে, ওই অবস্থায় খেলাটা ঝুঁকির হয়ে যেত কি না। দুটো দল যে জায়গায় দাঁড়িয়ে, সেখান থেকে ক্রিকেটারদের কথা ভেবে কোনও ঝুঁকি নেওয়ার মানে হয় না। বিশ্বকাপের এই পর্যায়ে ক্রিকেটারদের চোট লাগুক, এটা কেউ চায় না।’’

 





































 




 

Developed by :