Sunday, 18 August, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৩ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




বার্সাকে উড়িয়ে রূপকথা লিখল লিভারপুল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:  ‘বেস্ট নেভার রেস্ট’। সেরারা দম ফেলে না। দম ফেলার সুযোগ তাদের নেই। বার্সা কি তবে গা ছেড়ে খেলেছিল। নাকি অসম্ভব বলে কিছু নেই জার্গেন ক্লপের দল সেটি প্রমাণ করলো। লিভারপুল চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে বার্সার বিপক্ষে ৪-০ গোলে জিতেছে। দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৩ গোলে জিতে ফাইনালে উঠে গেছে।

বার্সেলোনা ম্যাচের আগে লিভারপুল তারকা মোহামেদ সালাহ ছিটকে গেছেন। ফিরমিনো নেই তারও আগে। মাথার ওপর তিন গোলে পিছিয়ে থাকার চাপ। তারপরও অ্যানফিল্ডে বার্সার বিপক্ষে তুমুল লড়াইয়ের আভাস দেয় লিভারপুল। বার্সার মাঠে প্রথম লেগে দারুণ লড়াই অলরেডসদের মনে বল জোগায়। সেই ভরে দ্বিতীয়ার্ধের পরপরই বার্সার বিপক্ষে ৩-০ গোলের লিড নেয় ক্লপের দল। পরে গোল করে ফাইনাল নিশ্চিত করেন অরিজি।

ইউরোপ সেরার লড়াইয়ে প্রথমার্ধের সাত মিনিটে গোল করেন অরিজি। বাকি সময়টা দু’দলই দারুণ কিছু আক্রমণ তোলে। তবে জাবদা দুই গোলরক্ষককে প্রথমার্ধে আর ফাঁকি দিতে পারেনি কোন দল। দ্বিতীয়ার্ধে এসে ৫৪ ও ৫৬ মিনিটে এসে ম্যাচের রং বদলে দেন উইজনালডম। তিনি বার্সার দম ছাড়ার আগে দুই গোল করে অ্যানফিল্ডের লাল রংয়ে ছেয়ে যাওয়া গ্যালারি গর্জনের সাগরে পরিণত করেন। এরপর ৭৯ মিনিটে আবার গোল করেন অরিজি।

এরপর অবশ্য গোল একটি অ্যাওয়ে গোলের জন্য বার্সা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়েছে। তবে ব্যর্থ হয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাদের। আর লিভারপুল লিখেছে রূপকথা। ইউরোপিয়ান বা চ্যাম্পিয়নস লিগের তৃতীয় দল হিসেবে ৩ গোলে পিছিয়ে থেকেও ফাইনালে যাওয়ার ইতিহাস গড়েছে তারা।

এ নিয়ে টানা দ্বিতীয়বার চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে উঠল লিভারপুল। আর বার্সা পেল গত মৌসুমে রোমার বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে ৪-১ গোলে হেরে বিদায় নেওয়ার সেই স্বাদ। এখন লিভারপুলের অপেক্ষা প্রতিপক্ষের। স্পেনের ওয়ান্ডা মেট্রোপলিটানোতে তাদের প্রতিপক্ষ আয়াক্স হবে নাকি টটেনহ্যাম, সেই অপেক্ষা।

 

Developed by :