Tuesday, 15 October, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




জৈন্তাপুরে দুই বাসের প্রতিযোগিতা, প্রাণ গেল দুই বোনের

জৈন্তাপুর: দুটি বাসের গতির প্রতিযোগিতায় সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার বৈঠাখাল নামক স্থানে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটেছে। একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে গিয়ে প্রাণ গেছে দুই বোনের। আজ বুধবার দুপুর ১২টার দিকে সিলেট-তামাবিল সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলো- নিহতরা হলো- লুবনা বেগম (১২) ও অহনা বেগম (৭)। এ দুই বোন জৈন্তাপুর উপজেলার ফুলবাড়ী গ্রামের শওকত আলীর মেয়ে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ১০ জন।

আহতরা হলেন- গোলাপগঞ্জ উপজেলার মো. জাহিদ (২৮) ও সেলিনা বেগম (২৫), সিলেট সদরের নয়াগ্রামের শিফা বেগম (৩৫) ও তার ছেলে শরিফ আহমদ (১৩), নারায়ণগঞ্জ জেলার সজিব আহমদ (২৫), নরসিংদী জেলার আলাল মিয়া (১৮), হবিগঞ্জ জেলার শিবলু মিয়া (৩০), জৈন্তাপুর উপজেলার ফুলবাড়ী গ্রামের সোহাগ আহমদ (৩), গোয়াইনঘাট উপজেলার মোহাম্মদপুর গ্রামের নাঈম মিয়া (১০) ও সাইফুল ইসলাম (২৬)। তন্মধ্যে জাহিদ, সেলিনা ও সাইফুলকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্য আহতদের জৈন্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে, জাফলং থেকে দুটি বাস সিলেটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। সিলেট-তামাবিল সড়কে বাস দুটি নিজেদের মধ্যে কে কার আগে যেতে পারে সেই প্রতিযোগিতা শুরু করে। জৈন্তাপুরের বৈঠাখাল নামক স্থানে এসে একটি বাস (সিলেট জ-০৪-০০৯৯) নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। এতে ওই দুই বোন নিহত হয়। দুর্ঘটনার পর স্থানীয় জনতা আহতদের উদ্ধার করেন।

এদিকে, দুর্ঘটনার পর স্থানীয় জনতা সড়ক অবরোধ করে রাখেন। পরে জৈন্তাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল আহমদ এবং জৈন্তাপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

জৈন্তাপুর মডেল থানার ওসি খাঁন মো. মাঈনুল জাকির বলেন, ‘দুর্ঘটনায় দুই বোন নিহত হয়েছে। পরে সড়ক অবরোধ করেছিল জনতা। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। তবে ঘাতক বাসের চালক কিংবা হেলপার কাউকে পাওয়া যায়নি।’

 

Developed by :