Monday, 22 April, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৯ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




সুটকেসের ভেতর প্রেমিকার টুকরো টুকরো দেহ! প্রেমিক আটক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:  প্রেমিক বিদেশে চাকরি পেয়েছেন। স্থির হয়েছিল প্রেমিকাও তাঁর সঙ্গে পাড়ি দেবেন বিদেশে। সেইমতো বিয়ে চূড়ান্ত হয়ে যাওয়া তরুণ-তরুণী বিদেশে পাড়ি দেন। তারপর তিনদিন কোনও যোগাযোগ ছিল না তরুণীর।

বাড়ির লোকের সন্দেহ হওয়ায় মিসিং ডায়েরি করা হয় থানায়। শেষপর্যন্ত সুটকেসের ভেতর থেকে তরুণীর টুকরো করা দেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটে ভারতের হায়দরাবাদে। নিহত ২৫ বছর বয়সের তরুণী পেশায় সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার। রবিবার সকালে হায়দরাবাদ শহর থেকে একটু দূরে স্কুলের পাশে একটি পরিত্যক্ত সুটকেস পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। পুলিশ সুটকেসটি উদ্ধারের পরই চক্ষু চড়কগাছ হয়ে যায়। ওই সুটকেসে টুকরো টুকরো করে কাটা তরুণীর দেহ দেখে চমকে ওঠে পুলিশ ও স্থানীয় জনতা।

পুলিশ এই ঘটনায় গ্রেপ্তার করেছে প্রেমিককে।

ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার সময় থেকেই তাঁদের প্রেম। তারপর প্রেমিক-প্রেমিকা একইসঙ্গে চাকরি করতেন হায়দরাবাদে। গোল বাধল বিদেশে চাকরি পাওয়ার পরই। প্রেমিকা চাইছিল বিয়ে করে একসঙ্গে বিদেশে পাড়ি দিতে। তাতে আপত্তি ছিল প্রেমিকের। দুবাড়ির সম্মতিতেই বিয়ে চূড়ান্ত হয়ে গেলেও, তারা স্থির চাকরিতে যোগ দেওয়ার পর ফিরে এসে বিয়ে করবে। স্থির হয়, প্রেমিকাও সঙ্গে যাবে। তাতে রাজিও হয়ে যায় প্রেমিক।

কিন্তু ইতিমধ্যেই সে যে খুনের পরিকল্পনা ছকে ফেলেছিল, তা বুঝে উঠতে পারেনি কেউই। ৪ মার্চ পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেই হায়দরাবাদ বিমানবন্দরে যান তরুণী। তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পেরেছে, বিদেশে পাড়ি দেওয়ার বদলে এরপর প্রেমিকাকে জোর করেই একটি হোটেলে নিয়ে যায়। সেই হোটেলেই প্রেমিকাকে খুন করে টুকরো টুকরো করে কেটে সুটকেসে ভর্তি করে ফেলে সে। তারপর সেই সুটকেস ফেলে দিয়ে যায় স্কুল চত্বরে পরিত্যক্ত এলাকায়। সেই ঘটনার ৪০ দিন পর উদ্ধার হয় দেহ। গ্রেপ্তার হয় প্রেমিক।

 





Developed by :