Monday, 22 July, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৭ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




পাউডারে ক্যান্সার, জনসনকে ৩ কোটি ডলার জরিমানা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।।

প্রসাধনী নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জনসন অ্যান্ড জনসনের জনপ্রিয়তা বিশ্বজুড়ে। কিন্তু সম্প্রতি এই প্রতিষ্ঠানের বেবি পাউডার নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। জনসনের বেবি পাউডার থেকে মেসোথ্যালমিয়া নামক ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়া এক নারীকে ২ কোটি ৯০ লাখ ডলার ক্ষতিপূরণের নির্দেশ দিয়েছে ক্যালিফোর্নিয়ার একটি আদালত।



বুধবার অকল্যান্ডের ক্যালিফোর্নিয়ার সুপিরিয়ার কোর্টে মামলার শুনানিতে ওই আদেশ দেয়া হয়। জনসন অ্যান্ড জনসন অবশ্য জানিয়েছে, এই রায়ে তারা খুশি নন। শুনানি চলাকালীন ‘প্রামান্য তথ্যের ক্ষেত্রে গভীর গরমিল’ নিয়ে আবেদন জানানোর কথাও বলেছেন তারা।



গত বছরের ডিসেম্বরে রয়টার্সের অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে জনসনের বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসে। প্রতিবেদন অনুযায়ী, জনসন বেবি পাউডারে রয়েছে ক্ষতিকর খনিজ পদার্থ অ্যাসবেস্টস। যা থেকে হতে পারে ক্যান্সার। আর তা জেনেও গত কয়েক যুগ ধরে বেবি পাউডারে এ বিষাক্ত পদার্থটির প্রয়োগ করে আসছে জনসন অ্যান্ড জনসন।



তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে তারা জানতো যে, অ্যাসবেস্টস রয়েছে তাদের পণ্যে। উচ্চ তাপ শোষণ ক্ষমতা সম্পন্ন এই খনিজ সিলিকেট তন্তুটি শরীরে ঢুকলে ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এই তথ্য লুকিয়েই বছরের পর বছর বেবি পাউডার বিক্রি করেছে জনসন অ্যান্ড জনসন।



নিউ জার্সির দ্য নিউ বার্নসউইক শহরের এই কোম্পানি অবশ্য তাদের প্রোডাক্ট থেকে ক্যানসার হয় এই আশঙ্কাকে অস্বীকার করেছে। তাদের দাবি, বিশ্বজুড়ে অসংখ্য মানুষের উপর পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে এটা সম্পূর্ণ সুরক্ষিত অ্যাসবেস্টস মুক্ত।



জনসনের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া কয়েক ডজন মামলার মধ্যে টেরি লিয়াভিটের মামলাটিই সর্বপ্রথম। চলতি সপ্তাহের জানুয়ারির ৭ তারিখ থেকে নয় সপ্তাহব্যাপী শুনানি শুরু হয়।






















 

Developed by :