Wednesday, 19 June, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




ফেঞ্চুগঞ্জে ব্রিজ নির্মাণে ‘পুরাতন রড’, দুদকের অভিযানে বন্ধ কাজ

বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম।।

সিলেট-মৌলভীবাজার মহাসড়কের ফেঞ্চুগঞ্জে একটি ব্রিজের ঢালাইয়ের কাজে পুরাতন রড ব্যবহারের অভিযোগে সেখানে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) অভিযানে বন্ধ রয়েছে সংস্কার কাজ। একইসাথে এ কাজে জড়িত ঠিকাদারকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে একবছরের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

শুক্রবার (২২ ডিসেম্বর) বিকেলে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় উওর ফরিদপুর ব্রিজের পুনঃ নির্মাণকাজের সময় দুদক এ অভিযান চালায়।



সূত্রে জানা যায়, সিলেট-মৌলভীবাজার মহাসড়কের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় উওর ফরিদপুরে ৪০ ফুট লম্বা ও ১৭ ফুট চওড়া ব্রিজের পুনঃ নির্মাণকাজ চলছে গত তিন সপ্তাহ থেকে। এক পর্যায়ে ঢালাইর জন্য ভাঙা ব্রিজের পুরাতন রডগুলোকে পিটিয়ে পুনরায় ব্রিজের ঢালাইয়ের জন্য তৈরি করা হয়। এমন খবর পেয়ে শুক্রবার বিকালে সেই ব্রিজের কাজ পরিদর্শনে আসেন দুদকের টিম।



এসময় তারা দেখতে পান উওর ফরিদপুর ব্রিজের উপরে স্থাপিত বেইলি ব্রিজের উপর দিয়ে গাড়ি চলাচল করছে। আর নিচে পুরাতন ব্রিজের ঢালাই ভেঙ্গে সেই রডগুলোকে পিটিয়ে সোজা করেফের ঢালাইর জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে।



অভিযানে দুদকের মহাপরিচালক (প্রশাসন) ও এনফোর্সমেন্ট ইউনিটের প্রধান সমন্বয়ক মোহাম্মাদ মুনির চৌধুরীর নির্দেশে দুদকের সিলেট কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোস্তফা বোরহান উদ্দিন ও উপ সহকারী পরিচালাক মো. আশরাফ উদ্দিনের সমন্বয়ে গঠিত এনফোর্সমেন্ট টিম অংশ নেয়। এসময় দুদক টিমের সঙ্গে অভিযানে অংশ নেন ফেঞ্চুগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী অফিসার আয়শা হক।



এসময় দুদকের অভিযান টিমের সঙ্গে থাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আয়শা হক মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ঠিকাদারকে এক বছরের কারাদণ্ড দেন এবং দুদকের নির্দেশে সেই ব্রিজের কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়।



এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সড়ক জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী পরিতোষ বড়ুয়া বলেন, “এখনো ব্রিজের মূল কাজ শুরু হয়নি। এখনো পর্যন্ত পাথর, রড়, বালি, সিমেন্ট আসেনি। মূল ঢালাইর আগে এসব পুরাতন রডগুলো সরিয়ে নেয়া হবে।”

এ নিয়ে এত রাগডাক করার কিছু নেই বলেও জানান পরিতোষ বড়ুয়া।

 

 

 

 

 



 


















 











 





সর্বশেষ সংবাদ

Developed by :