Saturday, 1 October, 2022 খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |




প্রিয়জনকে হারানোর কষ্টটা আমি বুঝি: প্রিয়াংকা গান্ধী

বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম।।

ভারতশাসিত জম্মু-কাশ্মীরে সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) গাড়িবহরে জঙ্গিদের আত্মঘাতী বোমা হামলায় ৪৪ ভারতীয় আধাসামরিক সেনা নিহত হয়েছেন।

জঙ্গি হামলার নিন্দা জানিয়ে নিহত সেনাদের পরিবারকে সমবেদনা জানিয়েছেন গান্ধী পরিবারের সদস্য ভারতীয় কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াংকা গান্ধী।



বৃহস্পতিবার ঘটনার পর পরই নিহত সেনাদের পরিবারের উদ্দেশে প্রিয়াংকা গান্ধী একটি লিখিত বিবৃতি দেন। এতে বলেন, ‘পুলওয়ামার জঙ্গি হামলায় যে সেনারা শহীদ হলেন, তাদের মৃত্যুর জন্য গভীরতম শোকপ্রকাশ করছি।

পরিবারের প্রিয়জনকে হারানোর কষ্ট ও ব্যথা আমি অনুভব করতে পারি। আমি তাদের বলতে চাই- শুধু কংগ্রেসই নয়, এই প্রবল শোকের সময়ে আপনাদের পাশে রয়েছে গোটা দেশ, এই বিশাল ও বিস্তীর্ণ ভারতবর্ষ।’



জঙ্গি হামলায় নিহত জওয়ানদের পবিরাবের উদ্দেশে প্রিয়াংকা গান্ধী আরও বলেন, ‘যে স্ত্রী হারালেন তার স্বামীকে, যে সন্তান হারাল তার বাবাকে, যে অভিভাবক হারালেন তার পুত্রকে- সবার প্রতিই আমার গভীর সমবেদনা রইল। আমরা কেবল তাদের একটি কথাই বলতে চাই- এই চরমতম দুঃখের সময়ে আমরা তাদের পাশে আছি। দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন গুরুতর আহত জওয়ানদের জন্য।’



৪৭ বছর বয়সী রাজীব-সোনিয়াকন্যার সক্রিয় রাজনীতিতে পা রাখার পর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তার প্রথম সংবাদ সম্মেলন করার কথা ছিল। কিন্তু জঙ্গি হামলায় ৪৪ সেনা নিহত হওয়ার পর সংবাদ সম্মেলন স্থগিত করেন প্রিয়াংকা।



প্রিয়াংকা গান্ধী সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, ‘এই সময়টা রাজনৈতিক আলোচনার জন্য ঠিক নয় বলেই আমি মনে করি। যেসব পরিবার তাদের সন্তানকে হারালেন, যে স্ত্রী হারালেন তার স্বামীকে, যে সন্তান হারাল তার বাবাকে, যে অভিভাবক হারালেন তাদের ছেলেকে, সবার প্রতিই আমার গভীর সমবেদনা রইল। আমরা কেবল তাদের একটি কথাই বলতে চাই- এই চরমতম দুঃখের সময়ে আমরা তাদের পাশে আছি। কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আছি।’



প্রসঙ্গত, ছোটবেলায় বাবাকে হারান প্রিয়াংকা গান্ধী।আততায়ীর হাতে নিহত হন ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী।প্রিয়াংকার দাদী ইন্দিরা গান্ধীও সন্ত্রাসী হামলায় নিহত হন।



বৃহস্পতিবার বিকালে পুলওয়ামায় সিআরপিএফের ওই গাড়িবহরে ঢুকে পড়ে বিস্ফোরক বোঝাই একটি গাড়ি। জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদ হামলার দায় স্বীকার করেছে।



পুলিশ জানায়, পুলওয়ামা জেলার শ্রীনগর-অনন্তনাগ মহাসড়কের ওপর দিয়ে জম্মু থেকে শ্রীনগরে যাচ্ছিল সিআরপিএফের গাড়িবহর। পথে গোরিপোরার কাছে একটি বাসে ধাক্কা মারে বিস্ফোরকভর্তি গাড়িটি।

জঙ্গি হামলার নিন্দা জানিয়েছেন ভারতের প্রায় সব রাজনীতিবিদ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, সেনাদের আত্মবলিদান বিফলে যাবে না।



কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী বলেছেন, ‘অত্যন্ত কাপুরুষের মতো কাজ এটি। এতজন সেনার শহীদ হয়ে যাওয়া মেনে যাওয়া না। আমি তাদের আত্মার শান্তি কামনা করি। তাদের পরিবারকে সমবেদনা জানাই। আহতদেরও দ্রুত আরোগ্য কামনা করি।’
























 

Developed by :