Monday, 26 September, 2022 খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |




গোলাপগঞ্জে এহিয়া ট্রাস্টের বৃত্তি ও অনুদান বিতরণ

বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম।।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের স্কুল অব ম্যানেজম্যান্ট এন্ড বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশনের ডীন এবং ব্যবসা প্রশাসন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. মোছাদ্দেক আহমদ চৌধুরী বলেছেন, শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের চিন্তাকে মাথায় রেখে লেখা-পড়া চালিয়ে যেতে হবে। আগামী ৪০/৫০ বছর বর্তমানের মত বিজ্ঞানের জয় জয়কার থাকার সমূহ সম্ভবনা আছে। তাই শিক্ষার্থীদেরকে বিজ্ঞান মনস্ক হয়ে গড়ে উঠতে হবে।

 



তিনি বলেন, পড়ালেখার উদ্দেশ্য হোক সার্টিফিকেট বা চাকুরী লাভ নয়, ভাল মানুষ হয়ে গড়ে উঠা। উচ্চ নৈতিকতা ও মনুষত্ত¡বোধ না থাকলে ভাল মানুষ হওয়া যায় না, ভাল সমাজ গড়ে উঠে না। ধর্মীয় বিধি নিষেধ, পিতা-মাতার প্রতি শ্রদ্ধাবোধ, পরিবার ও সমাজে শান্তি নিয়ে আসতে পারে।

 



গতকাল শনিবার গোলাপগঞ্জে এহিয়া ট্রাস্ট আয়োজিত বৃত্তি ও অনুদান বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। তিনি শিক্ষার্থীদের জীবন গঠনে পিতা-মাতার অবদানকে স্মরণ রেখে সবসময় তাদের শ্রদ্ধা ও ভালবাসার চোখে দেখার আহবান জানান।

 



সকাল ১১টায় গোলাপগঞ্জ জামেয়া ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে এহিয়া ট্রাষ্টের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান, প্রবাসী শিক্ষাবিদ চৌধুরী বখতিয়ার এহিয়া রেহেলের সভাপতিত্বে ও ট্রাস্টের অন্যতম ট্রাস্টী, সাংবাদিক মাহফুজ আহমদ চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সিলেট স্টেশন ক্লাবের প্রেসিডেন্ট ও সিলেট জেলা বারের সাবেক সভাপতি এডভোকেট এমাদ উল্লাহ শহিদুল ইসলাম শাহিন বলেছেন, মেধাবীদের তাদের মেধাকে ধরে রেখে এগিয়ে যেতে হবে, তবেই মেধা তাদের যথাযথ কাজে লাগবে। সহ পাঠ্যক্রমিক কার্যক্রম বাস্তবায়নের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সৃজনশীল মেধার বিকাশ ঘটাতে হবে।

 



অপর বিশেষ অতিথি বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও সাহিত্য সমালোচক কবি বাছিত ইবনে হাবিব বলেছেন, ভাল মেধাবী ছাত্র হলেই ভাল মানুষ হওয়া যায় না, ভাল মানুষ হতে হলে মেধার সাথে মানবিক দৃষ্টি ভঙ্গি থাকতে হবে। জোহারের কাদের মাহবির পবিত্র কোরআন তেরাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ট্রাস্টের সেক্রেটারী শাহেদ আহমদ চৌধুরী।

 



সম্মানিত অতিথির বক্তব্য রাখেন গোলাপগঞ্জ জামেয়া ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রিন্সিপাল মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম, ট্রাস্টী সৈয়দ নাছির উদ্দিন, জামেয়ার ভাইস প্রিন্সিপাল জিন্নুর আহমদ চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন এহিয়া আহমদ চৌধুরী স্মৃতি শিক্ষক পদকপ্রাপ্ত কৃতি শিক্ষক, আজাদ চৌধুরী একাডেমী বিয়ানীবাজারের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ খায়রুল বাশার চৌধুরী, ফুলশাইন্দ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক জহিরুল আলম শাহিন, স্মৃতি পরিসদের সহ-সভাপতি রশীদ আহমদ, বৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর অভিভাবক, সরকারি এমসি একাডেমীর প্রভাষক নজরুল ইসলাম, এডভোকেট সফিকুল ইসলাম।

 



অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এহিয়া আহমদ চৌধুরী স্মৃতি পরিষদের সভাপতি আলহাজ¦ মসনুন চৌধুরী, বরায়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমান, ঢাকাদক্ষিণ জামেয়া ইসলামিয়া স্কুলের প্রিন্সিপাল আনোয়ার হোসেন কিবরিয়া, সমাজসেবী আরবাব আহমদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানে এহিয়া আহমদ চৌধুরী স্মৃতি ১৬ তম জুনিয়র বৃত্তি প্রাপ্ত ২৭ জনকে, মাদ্রাসা কোটায় বৃত্তিপ্রাপ্ত ৫ জনকে, শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিক আহমদ চৌধুরী স্মৃতি ১ম প্রাথমিক বৃত্তিপ্রাপ্ত ১৮ জন শিক্ষার্থীকে সার্টিফিকেট, ক্রেস্ট ও বৃত্তির টাকা প্রদান করা হয়।

 



এছাড়া স্থানীয় ৬ জন শিক্ষার্থীকে শামসুননাহার চৌধুরী শিক্ষা বৃত্তি, ৫টি বিদ্যালয়ে ক্রীড়া সামগ্রী, ১টি স্কুল ও ২টি মাদ্রাসায় ট্রাস্টের পক্ষ থেকে বার্ষিক অনুদান প্রদান করা হয়। আলোচনা সভা শেষে বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন হাফেজ মাওলানা ফয়জুল করিম।

 

 

 















 

Developed by :