Wednesday, 19 June, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




সিলেট-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়কে যাত্রীবেশী ছিনতাই চক্র

বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম, সিলেট।। 

সিলেট নগরী থেকে ফেঞ্চুগঞ্জ-পালবাড়ি এলাকায় আসার জন্য হুমায়ুন রশীদ চত্ত্বর থেকে সিএনজি অটোরিকশা ও প্রাইভেট কার অনেকের পছন্দ। ৪/৫ জন যাত্রী নিয়ে সিএনজি অটোরিকশা বা প্রাইভেট কার ছেড়ে দেয়।

সল্পসময়ে একটু আরামে চলাচলের জন্য যাত্রীরা উঠেন। কিন্তু অর্ধেক পথে এসে দেখা যায় গাড়িতে ১জন যাত্রী ছাড়া বাকি সবাই যাত্রীবেশী ছিনতাইকারী। যাত্রী খুইয়ে বসেন টাকা পয়সা মোবাইল ইত্যাদি। এরকমই ঘটছে সিলেট-ফেঞ্চুগঞ্জ রোডে।

ভূক্তভোগীরা জানান, দুই তিন জন ছিনতাইকারী আগে থেকেই যাত্রীবেশে গাড়িতে বসে থাকে। আরো একজন যাত্রী হলে গাড়ি ছাড়বে বলা হলে এক জন যাত্রী উঠেন। টার্গেট করা যাত্রীকে কৌশলে মাঝখানে বসিয়ে গাড়ি ছাড়ে।

পথিমধ্যে খালি জায়গায় এসে অস্ত্র ধরে ছিনতাই করা হয়। ছিনতাইকারীরা টাকা পয়সার সাথে মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়ায় ভুক্তভোগী যাত্রী তাৎক্ষণিক সাহায্য চাইতে পারেন না। এ সুযোগে ছিনতাইকারীরা তাদের নিরাপদ স্থানে চলে যায়। এরকম কৌশলী ছিনতাই এ রোডে প্রায়ই ঘটছে।

গত ৫ নভেম্বর এরকম ছিনতায়ের শিকার হোন ফেঞ্চুগঞ্জের এক যুবক। ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে আহত যুবক সিলেট একটি বেসরকারি ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন। এর আগে গত মে মাসে মৌলভীবাজারের একটি ছিনতাই চক্রকে প্রাইভেটকারসহ আটক করে মোগলাবাজার থানা পুলিশ। এর পরে ছিনতাই কিছুটা কমলেও সম্প্রতি আবার ছিনতাইকারীরা বেপরোয়া হয়ে উঠছে।

জানা যায়, সিলেট-ফেঞ্চুগঞ্জ মহাসড়কে দক্ষিণ সুরমার লালমাটিয়া, পারাইরচক ও মোগলাবাজার থানা এলাকায় জনশূণ্যস্থানে ছিনতাইকারীরা আক্রমণ করে। জনশূ্ণ্য হওয়ায় ভুক্তভোগীরা সাহায্য পাননা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ছিনতাইয়ের শিকার একজন বলেন, ভূল যাত্রীরই। ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটার পরও এরকম গাড়িতে না উঠা উচিত। না হয় পরিচিত কয়েকজন এক সাথে যাতায়াত করলে ছিনতাই এড়ানো সম্ভব।

পুলিশি সহায়তার ব্যাপারে তিনি বলেন, সর্বস্ব হারিয়ে ভুক্তভোগী আর থানা পুলিশে যেতে চায় না।

 





সর্বশেষ সংবাদ

Developed by :