Sunday, 18 August, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৩ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |




আ’লীগের প্রেস্টিজিয়াস জনসভা পরিণত হবে কী জনসমুদ্রে?

ছবিটি বুধবার উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তুতি সভার ছবিটি মঙ্গলবার উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তুতি সভার

আ’লীগের প্রেস্টিজিয়াস জনসভা পরিণত হবে কী জনসমুদ্রে?

আজাদ রহমান:: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মনোনীত হওয়ার পর বৃহস্পতিবার বিয়ানীবাজারে প্রথম আসছেন এ জনপদের কৃতিসন্তান, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীরমুক্তিযোদ্ধা শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি।
গত ২৩ অক্টোবর দলের ২০তম জাতীয় কাউন্সিলে দলীয় সভানেত্রী বঙ্গবন্ধু তনয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্লিন ইমেজের রাজনীতিবিদ হিসেবে সুপরিচিত নাহিদকে এই বীরল সম্মানে ভূষিত করেন।

এদিকে বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বৃহস্পতিবার বেলা দু’টায় স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ প্রাঙ্গনে বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণ দেবেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি। জনসভায় নেতাকর্মীরা শিক্ষামন্ত্রীর কাছ থেকে রাজনীতির পাশাপাশি সরকারের উন্নয়ন ও বিয়ানীবাজার পৌরসভার নির্বাচন নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য আশা করছেন।
বৃহস্পতিবারের জনসভা হবে আ’লীগের জন্য প্রেস্টিজিয়াস। এ কারণে জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করতে ইতিমধ্যে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে আ’লীগ। বসে নেই পৌর আ’লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠন।

এমনকি দৃষ্টিনন্দন সাজসজ্জায় পুরো শহরকে সাজানোর ব্যবস্থা করেছে পৌর আওয়ামী লীগ। শহরের আইল্যান্ডে টাঙানো হচ্ছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাথে ছাত্রনেতা নুরুল ইসলাম নাহিদের বিশেষ বিশেষ মুহূর্তের দুর্লভ ছবি সংবলিত সাইবোর্ড কিংবা প্লেকার্ড। এছাড়া রং-বে-রংয়ের ফেস্টুন ও দলীয় পতাকায় আচ্ছাদিত করা হবে প্রধান সড়ক।

জানা যায়, বৃহস্পতিবারের জনসভা উপজেলা আ’লীগের জন্য অনেকটা প্রেস্টিজ ইস্যু। দীর্ঘদিন পর বর্ণাঢ্যভাবে দলের জনসভা করা হচ্ছে। তাছাড়া কয়েক মাসের মধ্যে আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। দায়িত্বশীল নেতারা জনসভাবে সফল করতে না পারলে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্যের কাছে তাদেও নেতৃত্ব প্রশ্নবিদ্ধ হবে। এমনকি আগামী সম্মেলনে কেউ কেউ হারাতে পারেন গুরুত্বপূর্ণ পদ।

এদিকে উপজেলা আ’লীগ ইতিমধ্যে ১০ ইউনিয়নে বিশেষ কর্মী সভা সম্পন্ন করেছে। এসব সভায় উপজেলা আ’লীগ সভাপতি হাজি আব্দুল হাছিব মনিয়া, সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান খান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বাবুল ও মো. জাকির হোসেনসহ দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সূত্রমতে, ইউনিয়ন কমিটিগুলো গঠনের পর এই প্রথম উপজেলা শহরে দলের জনসভা হচ্ছে। এজন্য কোন ইউনিয়ন থেকে কতোজন নেতাকর্মী জনসভায় যোগদান করছেন তা দেখভালের জন্য বিশেষ একটি কমিটি কাজ করবে। পরবর্তীতে সে অনুযায়ী ইউনিয়ন আ’লীগের দায়িত্বশীলদের জবাবদিহীর আওতায় আনা হবে। এমনকি যে ইউনিয়নের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ তৃণমূল কর্মীদের জনসভা নিয়ে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাওয়া যাবে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানা গেছে।
সার্বিক বিষয়ে উপজেলা আ’লীগের সভাপতি হাজি আব্দুল হাছিব মনিয়া বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম-কে বলেন, জনসভার প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে। তিনি বলেন, আমরা আশাবাদি দলের নেতাকর্মীরা উৎসবের আমেজে জনসভায় যোগদান করবেন।
দলের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান খান বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম-কে বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা এ জনপদের কৃতিসন্তান নুরুল ইসলাম নাহিদকে সর্বোচ্চ মূল্যায়ন করেছেন। আমার বিশ্বাস, আ’লীগের প্রত্যেক নেতাকর্মী জনসভায় স্বগৌরবে উপস্থিত হয়ে ইতিহাসের পাতায় নাম লেখাবে।

এদিকে বিয়ানীবাজার পৌর আ’লীগের সভাপতি হাজি সামছুল হক, সাধারণ সম্পাদক এবাদ আহমদ, যুগ্ম সম্পাদক লায়েক আহমদ, আব্দুল হান্নানসহ নেতাকর্মীরা জনসভা সফল করতে খুবই পরিশ্রান্ত। তোরণ নির্মাণ থেকে শুরু করে শহরের সৌন্দর্য-বর্ধনের কাজ তারা করে যাচ্ছেন। জানা যায়, পৌর আ’লীগের একটাই লক্ষ-জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করা।

পৌর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এবাদ আহমদ বিয়ানীবাজারবার্তা২৪.কম-কে বলেন, জনসভা কে আয়োজন করলো তা মুখ্য বিষয় নয়। যদি আ’লীগের সকল নেতাকর্মী মিলে আমরা ঐতিহাসিক এ জনসভাকে সফল করতে পারি তাহলে দলের একজন কর্মী হিসেবে পরিশ্রম করা স্বার্থক হবে। তিনি পৌরসভার সকল ওয়ার্ড থেকে মিছিল সহকারে জনসভায় যোগদানের জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।

 

Developed by :